টপ ৫: পৃথিবীর সর্বোচ্চ ধনী ব্যক্তি এবং তাদের সম্পদের পরিমাণ

 

আমাদের সবারই একটি বিষয়ে জানার ইচ্ছে খুব প্রবল। আর তা হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি কে বা কারা এবং তারা কতটা ধনী। আপনি জেনে অবাক হবেন যে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী আট ব্যক্তির কাছে যতো সম্পদ আছে তা পরিমাণ বিশ্বের গরীব অর্ধেক মানুষের সম্পদের সমান। সেই আট জনের মধ্যে পাঁচ জনকে নিয়ে আমাদের টপ ৫ সবচেয়ে ধনীদের লিস্ট। তো চলুন দেখে নেই সবচেয়ে ধনী ৫ জনকে:

পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি এবং তাদের সম্পদ

আমাঙ্কিও_ওর্তেগা

আমাঙ্কিও ওর্তেগা

৫) আমাঙ্কিও ওর্তেগা: লিস্টের ৫ নম্বরে রয়েছেন আমাঙ্কিও ওর্তেগা। তিনি একজুন তুখোড় ব্যবসায়ী। ওর্তেগা বর্তমানে ইন্ডিটেক্স এর চেয়ারম্যান হিসেবে কর্মরত আছেন। এছাড়া ইন্ডিটেক্স জারা, মাসইমো এবং স্ট্র্যাডিভ্যারিয়াস নামক কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাথেও যুক্ত আছে। পৃথিবীর ৭৭ টি দেশে তাদের স্টোর রয়েছে। তিনি ফ্লোরিডা, মাদ্রিদ, লন্ডন এবং লিসবনের অনেক জমিরও মালিক। এছাড়া হর্স জাম্পিং, ফুটবল লীগে বাজি, টুরিষ্ট, গ্যাস, ব্যাংক ইত্যাদিতেও ওর্তেগার আকর্ষন ও বিনিয়োগ আছে। ব্লুমবার্গ এর মতে আমাঙ্কিও ওর্তেগার বর্তমান সম্পদের মূল্যমান প্রায় ৭০ বিলিয়ন।

জেফ_বেজস

জেফ বেজস

৪) জেফ বেজস: সবচেয়ে ধনীর ৪ নম্বরে আছেন জেফ বেজস। তিনি একজন আমেরিকান ব্যবসায়ী এবং বিশ্বের সবচেয়ে বড় ই-কমার্স সাইট Amazon.com এর প্রতিষ্ঠাতা, সিইও এবং চেয়ারম্যান। তিনি এরোস্পেস ডেভলোপার এর মালিক এবং ব্লু অরিজিন এর প্রস্তুতকারক। ব্লু অরিজিন বাণিজ্যিকভাবে মহাকাশে মানুষ পাঠানো নিয়ে কাজ করছে। ২০১৩ সালে তিনি ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকাটির মালিকানা কিনে নেন। তবে তার আয়ের প্রধান উৎস হচ্ছে অ্যামাজন। ব্লুমবার্গ এর মতে জেফ বেজসের মোট সম্পদের মূল্যমান প্রায় ৭২.৭ বিলিয়ন।

ওয়ারেন_বাফেট

ওয়ারেন বাফেট

৩) ওয়ারেন বাফেট: সবচেয়ে ধনীদের তালিকায় ৩ নম্বরে রয়েছে ওয়ারেন বাফেট। তিনি বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিনিয়োগকারী, জনহিতৈষী এবং ব্যবসায়ী। তালিকার অন্যদের মত বাফেট এর তেলের খনি কিংবা কম্পিউটার বা অনলাইন কিছু নেই যা আছে তা হলো বিভিন্ন শেয়ার। তিনি যেসব ক্ষেত্রে মনে করেন যে ক্ষেত্রটি আরো বেশি মার্কেট ভ্যালুর দাবিদার সেখানেই বিনিয়োগ করেন এবং অধিকাংশ বেলাতেই তিনি সফল হন। জনহিতৈষী এই ব্যক্তি “গিভিং প্লেজ” নামক চ্যারিটেবল সংস্থার মাধ্যমে তার অর্জিত আয়ের ৯৯% ই দান করে গেছেন যা তার মৃত্যুর ১০ বছরের মধ্যেই খরচ করা হবে। বিশ্বের ৩য় ধনী হয়েও তিনি ১৯৫৮ সালে ক্রয় করা সেই ৬০০০ বর্গফুটের বাড়িতেই বসবাস করেন। ব্লুমবার্গ এর মতে বর্তমানে ওয়ারেন বাফেট এর মোট সম্পদের পরিমান প্রায় ৭৩.২ বিলিয়ন।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: পৃথিবী সম্পর্কে জানা-অজানা পাঁচটি তথ্য
দ্য_মার্স_ফ্যামিলি

দ্য মার্স ফ্যামিলি

২) দ্য মার্স ফ্যামিলি: তালিকার ২য় স্থানে আছে দ্য মার্স ফ্যামিলি। ফ্রাংক ক্ল্যারেন্স মার্স ১৯১১ সালে ওয়াসিংটন ডিসি তে তাদের রান্নাঘরে চকোলেট বানানো শুরু করেন। আর এটিই বর্তমানে মিষ্টজাত পণ্যের সবচেয়ে বড় কোম্পানি। মার্স পরিবারের প্রধান ব্যান্ডগুলো হলো মিল্কি ওয়ে বার, এমএন্ডএমস্ চকোলেট ও ক্যারামেল এবং স্নিকার্স যা তাদের পছন্দের পারিবারিক ঘোড়ার নামে রাখা। এছাড়া পেডিগ্রি পেটফুডও অন্যান্য পেট কেয়ার সামগ্রী রয়েছে। ফোর্বস ম্যাগাজিন এর মতে মার্স ফ্যামিলি এর মোট সম্পদের মূল্যমান প্রায় ৮০ বিলিয়ন।

বিল_গেটস

বিল গেটস

১) বিল গেটস: শীর্ষ ধনীর তালিকার সবার প্রথম নামটি সম্পর্কে আমরা সবাই কম বেশি জানি বা শুনেছি। হ্যা, তিনি হলেন বিল গেটস। আমেরিকান এই ব্যবসায়ী একাধারে একজন সফল কম্পিউটার প্রোগ্রামার, বিনিয়োগকারী, লেখক এবং জনহিতৈষী ব্যক্তি। তিনি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় কম্পিউটার সফ্টওয়্যার নির্মান প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফ্ট এর সহ প্রতিষ্ঠাতা। ১৯৭৫ সালে, মাইক্রসফ্ট এর শুরুতেই তিনি সিইও হিসেবে ছিলেন এবং ২০০৮ সাল পর্যন্ত এই দায়িত্ব পালন করেন। তুখোড় এই প্রোগ্রামার ১৯৮৫ সালে বিখ্যাত অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ বের করেন। ২০০৮ সালে তিনি বিল এন্ড মিলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন নামে একটি চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন করেন। দানবীর এই ব্যক্তি “গিভিং প্লেড্জ” এর মাধ্যমে তার অধিকাংশ সম্পত্তি দান করে গেছেন এবং অনেক ধনীকেও এই চ্যারিটেবল কাজে অংশগ্রহনের জন্য উৎসাহিত করেছেন। ব্লুমবার্গ এর মতে বিল গেটস এর বর্তমান সম্পদের মূল্যমান প্রায় ৮৩.৯ বিলিয়।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"