টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ি (২০১৭)

গাড়ি দেখা বা কেনাবেচার সময় অনেকেরই একটি কমন প্রশ্ন থাকে যে, “গাড়িটি কত দ্রুত ছুটতে পারে? বা গাড়ির গতি কত?”। আসলে গাড়ির শ্রেষ্ঠত্ব পরিমাপের একাধিক উপায় থাকলেও ‘গাড়ির গতি’ তাদের মধ্যে অন্যতম। বর্তমানে ২০০ মাইল বা ৩২১ কি.মি. এর গতি কিছু মনে না হলেও ১৯৮৭ সালের আগে এই গতিই ছিল এক মহাকাল্পনিক কিছু। সে বছর ফেরারি তাদের ফেরারি এফ৪০ মডেল (Ferrari F40) এর একটি গাড়ি বের করে যা ২০০ মাইল অতিক্রম করা প্রথম গাড়ি (২০১ মাইল)। আর বর্তমানে বেশকিছু গাড়িই আছে যাদের গতি ঘণ্টায় ২০০ মাইল বা ৩২১ কিমি এর উপরে। শুধুশুধু বকবক করছি? বুঝেছি, আর তর সইছে না বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ি গুলো সম্পর্কে জানতে। তাই চলুন জেনে নেই বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির ৫ টি গাড়ি সম্পর্কে:

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ি

(Top 5 Fastest Cars In The World)

বুগাত্তি শিরন

বুগাত্তি শিরন

বুগাত্তি শিরন

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ির লিস্টে ৫ম স্থানে রয়েছে বুগাত্তি শিরন (Bugatti Chiron)। এর নামকরণ করা হয়েছে গ্রিক পুরাণের এক কিংবদন্তির নামে। জনপ্রিয় অনলাইন গেম নিড ফর স্পীড (Need for Speed) যারা খেলেছেন, তাদের কাছে বুগাত্তি শিরন নামটি খুবই জনপ্রিয়। কেননা এই বুগাত্তি শিরন গাড়িটির গতি প্রতি ঘন্টায় ৪২০ কি.মি. বা ২৬১ মাইলেরও বেশি এবং এই গতিতে উন্নীত হতে গাড়িটির সময় লাগে মাত্র ৩২ সেকেন্ড। এর ৮ লিটার ডব্লিউ ১৬ (W16) কোয়াড টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের ক্ষমতা ১,৫০০ হর্সপাওয়ার। এর বাহ্যিক এবং অভ্যন্তরীণ গঠন অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক যা তৈরি হয়েছে শক্তিশালী কার্বন ফাইবার দিয়ে এবং ভিতরে রয়েছে লেদারের আবরণ।

বুগাত্তি ভেরন সুপার স্পোর্ট

বুগাত্তি ভেরন সুপার স্পোর্ট

বুগাত্তি ভেরন সুপার স্পোর্ট

দ্রুতগতির গাড়ির পরবর্তী স্থানে রয়েছে বুগাত্তি ভেরন সুপার স্পোর্ট (Bugatti Veyron Super Sport)। যখন ভক্সওয়াগেন (Volkswagen) বুগাত্তি ব্র্যান্ড কিনেছিলো, তখন তাদের একটাই লক্ষ্য ছিল – বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ি নির্মাণ করা। আর তারা এ লক্ষ্য অর্জন করে ২০১০ সালে বুগাত্তি ভেরন গাড়িটি বাজারে আনার মাধ্যমে। আর এর পরবর্তী সংস্করণ হলো বুগাত্তি ভেরন সুপার স্পোর্ট। বাজারে এসেই গাড়িটি গিনেজ বুকে সর্বোচ্চ গতির গাড়ি হিসেবে রেকর্ড করে যা ঘণ্টায় প্রায় ২৬৮ মাইল বা ৪৩১.৩ কি.মি.। তবে ২০১৩ সালে কিছু টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কর্তৃপক্ষ তাদের এই স্বীকৃতি বাতিল করে দেয়। ১.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের এই গাড়িটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১,২০০ হর্সপাওয়ার ক্ষমতাসম্পন্ন ডব্লিউ-১৬ কোয়াড টার্বোচার্জড ইঞ্জিন যার ফলে ৩৬ সেকেন্ডেই গাড়িটি ০ থেকে ২৬৮ মাইল গতি তুলতে পারে।

হেনেসি ভেনম জিটি

হেনেসি ভেনম জিটি

হেনেসি ভেনম জিটি

বিশ্বের ৩য় সর্বোচ্চ গতির গাড়িটি হল হেনেসি ভেনম জিটি (Hennessey Venom GT)। এই গাড়িটি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২৭০ মাইল বা ৪৩৪.৫ কি.মি. গতিতে চলতে সক্ষম। গাড়িটির এই দানবীয় গতির কারণ হল এর ৭ লিটার এলএস৭ টার্বোচার্জড টুইন টার্বো ভি৮ (V8) এর ১২৪৪ হর্সপাওয়ারের ইঞ্জিন। গাড়িটির প্রধান বিশেষত্ব হচ্ছে এর ত্বরণ (Acceleration)। মাত্র ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে এর গতি ০ থেকে ঘণ্টায় প্রায় ১৯৮ মাইল ছাড়িয়ে যায়! এর এই অস্বাভাবিক ত্বরণ এর কারন হল এর অত্যাধুনিক ইন্টারকুলার সিস্টেম এবং সিঙ্গেল ক্লাচ প্যাডেল শিফট (Single Clutch Paddle Shift)। গতির বাইরেও এই হেনেসি ভেনম জিটি তে আছে অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক ইন্টেরিয়র ডিজাইন যা যে কাউকে মুগ্ধ করবে।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিমান বা উড়োজাহাজ

কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস

কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস

কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির গাড়ির লিস্টে ২য় স্থানে রয়েছে কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস (Koenigsegg Agera RS)। আরে?! এই গাড়িটি না সবচেয়ে দ্রুতগতির? হ্যাঁ, তবে কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস গাড়িটি কেন ২য় স্থানে রাখা হয়েছে তার ব্যাখ্যা পরবর্তী গাড়িটিতে দেওয়া হয়েছে। বুগাত্তি, ফেরারি কিংবা ম্যাকলারেন কোম্পানিগুলোর নাম আমাদের কাছে যতটা পরিচিত, কোয়েনিগসেগ নামটি সেই তুলনায় নিতান্তই কম। অথচ কোয়েনিগসেগ এর এই অ্যাগেরা আরএস মডেলের গাড়িটিই বর্তমান বিশ্বের ২য় দ্রুততম গাড়ি। এর টার্বোচার্জড ভি-এইট (V8) প্রযুক্তির ইঞ্জিনের ক্ষমতা ১,১৬০ হর্সপাওয়ার। যার ফলে এর সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় প্রায় ২৭৮ মাইল বা ৪৪৭.৩ কি.মি.!

হেনেসি ভেনম এফ ৫

হেনেসি ভেনম এফ ৫

হেনেসি ভেনম এফ ৫

এতক্ষণ তো দেখলেন ২০০র ঘরের গাড়িগুলো, এখন দেখবেন ৩০০ মাইল অতিক্রম করা বিশ্বের প্রথম গাড়ি। হ্যাঁ, এটি হলো বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম গাড়ি হেনেসি ভেনম এফ ৫ (Hennessey Venom F5)। হেনেসি এর বেশ কিছু গাড়িই খুব দ্রুতগতির। ২০১৪ সালে হেনেসি ভেনম জিটি দিয়ে মাত করা এই কোম্পানিটি ৩ বছর পর নিয়ে আসে এই হেনেসি ভেনম এফ ৫ নামের সুপারকারটি। হেনেসি দাবি করে এর গতি ঘণ্টায় প্রায় ৩০১ মাইল বা ৪৮৪.৪ কি.মি.! গাড়িটির চেসিস ২৯৫০ পাউন্ড ওজনের কার্বন ফাইবার দিয়ে তৈরি। এর টুইন টার্বো ভি-এইট প্রযুক্তির ইঞ্জিনের ক্ষমতা ১,৬০০ হর্সপাওয়ার। আর এর ফলাফল রীতিমত বিস্ময়কর। এই হেনেসি ভেনম এফ গাড়িটি মাত্র ৩০ সেকেন্ডে ০ থেকে ২৪৯ মাইল গতিতে যেয়ে আবার ০ তে আসতে পারে। তবে হেনেসি এখনো অফিশিয়ালভাবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস অনুযায়ী বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম গাড়ির বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারেনি, তাই কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আরএস ই অফিশিয়ালভাবে বিশ্বের দ্রুততম দ্রুততম গাড়ি।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল যুদ্ধ বিমান

আরো কিছু দ্রুতগতির গাড়ি: এসএসসি আল্টিমেট অ্যারো (SSC Ultimate Aero) , কোয়েনিগসেগ অ্যাগেরা আর (Koenigsegg Agera R), নাইনএফএফ জিটিনাইন-আর (9ff GT9 R), টেসলা রোডস্টার (Tesla Roadster), কোয়েনিগসেগ সিসিআর (Koenigsegg CCR), সালিন এস ৭ টুইন টার্বো (Saleen S7 Twin-Turbo), কোয়েনিগসেগ সিসিএক্স (Koenigsegg CCX), ম্যাকলারেন এফ ১ (McLaren F1), জেনভো এসটি ১ (Zenvo ST1), পাগানি হুয়েরা (Pagani Huayra) ইত্যাদি।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *