টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স (২০১৮)

সম্প্রতি এভিয়েশন সিকিউরিটি এবং প্রোডাক্ট রেটিং সাইট AirlineRatings.com বহুল প্রতীক্ষিত ২০১৮ সালের সেরা এয়ারলাইন্স (বিমান সংস্থা) এর তালিকা প্রকাশ করেছে। আর টানা ৫ম বারের মত শীর্ষস্থানে রয়েছে এয়ার নিউজিল্যান্ড (Air New Zealand)। তবে এর পরবর্তী স্থানগুলোতে কিছুটা রদবদল হয়েছে। এই রেটিং করার ক্ষেত্রে দুইটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর বিবেচনায় নেয়া হয়েছে – ফ্লাইট চলাকালীন অভিজ্ঞতা এবং বিমান ছেড়ে যাওয়া ও ল্যান্ডিং এর সময়ানুবর্তিতা। আর ফ্লাইট চলাকালীন অভিজ্ঞতার ক্ষেত্রে সীট কমফোর্ট, ফ্লাইট চলাকালীন বিনোদন, কেবিনের অবস্থা এবং পরিচ্ছন্নতা, পরিবেশিত খাবারের মান ছাড়াও বিভিন্ন সার্ভিস বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। তো আর দেরি কেন? চলুন দেখে নেই ২০১৮ সালের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স গুলো সম্পর্কে:

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স ২০১৮

(Best Airlines In The World)

ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ

ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ (Virgin Atlantic Airways)
ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ (Virgin Atlantic Airways)

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স এর ৫ম স্থানে রয়েছে পশ্চিম সাসেক্স এবং যুক্তরাজ্য ভিত্তিক এয়ারলাইন্স ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ (Virgin Atlantic Airways)। এটি হচ্ছে ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ লিমিটেড (Virgin Atlantic Airways Ltd.) এবং ভার্জিন আটলান্টিক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড (Virgin Atlantic International Ltd.) এর বাণিজ্যিক নাম৷ এটি একটি ব্রিটিশ এয়ারলাইন্স। এর প্রধান কার্যালয় অবস্থিত যুক্তরাজ্যের ক্রাউলিতে (Crawley)৷ এটি লন্ডন হিথ্রো, লন্ডন গ্যাটউইক এবং ম্যানচেস্টার থেকে উত্তর আমেরিকা, ক্যারিবিয়ান, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ায় যাত্রী সেবা দিয়ে থাকে। ভার্জিন আটলান্টিক এয়ারওয়েজ এর যাত্রীবাহী বিমানগুলো হল এয়ারবাস এ৩৩০-৩০০, এয়ারবাস এ৩৪০-৬০০, এয়ারবাস এ৩৫০-১০০০, এয়ারবাস এ৩৮০-৮০০, বোয়িং ৭৪৭-৪০০ এবং বোয়িং ৭৮৭-৯।

ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া

ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া (Virgin Australia)
ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া (Virgin Australia)

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স এর ৪র্থ স্থানে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া (Virgin Australia)। এটি অস্ট্রেলিয়ার ২য় বৃহত্তম এয়ারলাইন্স। ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এই এয়ারলাইন্সটি ২০০৬ সাল পর্যন্ত ভার্জিন ব্লু এয়ারলাইন্স (Virgin Blue Airlines) নামে পরিচিত ছিল এবং ২০১১ সাল থেকে ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া নামে পরিচিতি পায়। ভার্জিন অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কার্যালয় অবস্থিত অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে। এটি বিশ্বজুড়ে ৫২ টি গন্তব্যস্থলে যাত্রীসেবা প্রদান করে। ভার্জিন অস্ট্রেলিয়ার যাত্রীবাহী বিমানগুলো হল এয়ারবাস এ৩২০-২০০, এটিআর ৭২-৫০০, এটিআর ৭২-৬০০, এবং বোয়িং ৭৩৭-৭০০, বোয়িং ৭৩৭-৮০০, বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ এবং বোয়িং ৭৭৭-৩০০ইআর।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স (Singapore Airlines)
সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স (Singapore Airlines)

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স এর পরবর্তী স্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স (Singapore Airlines) যা এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম একটি এয়ারলাইন্স। এটি সিঙ্গাপুরের পতাকাবাহী বিমান যা সিঙ্গাপুর চাঙ্গি বিমানবন্দর (Singapore Changi Airport) ৬টি মহাদেশের ৩২ টি দেশের প্রায় ৬২ টি গন্তব্যস্থলে যাত্রীসেবা প্রদান করে। প্রত্যেকটি ফ্লাইটে বিভিন্ন রকমের সুস্বাদু খাদ্য পরিবেশনের জন্য সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সুখ্যাতি রয়েছে। এরা যাত্রীদের নিজ নিজ দেশ বা অঞ্চলের খাবার ফ্লাইটগুলোতে পরিবেশন করে থাকে। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী বিমানগুলো হল এয়ারবাস এ৩৩০(Airbus A330), এয়ারবাস এ৩৫০(Airbus A350), এয়ারবাস এ৩৮০(Airbus A380) এবং বোয়িং ৭৭৭(Boeing 777)। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স দ্বারা পরিচালিত সর্বমোট বিমানের সংখ্যা ১০৬টি।

কান্তাস এয়ারওয়েজ

কান্তাস এয়ারওয়েজ (Qantas Airways)
কান্তাস এয়ারওয়েজ (Qantas Airways)

লিস্টের ২য় স্থানে রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা কান্তাস এয়ারওয়েজ (Qantas Airways)। ১৯২০ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কান্তাস এয়ারওয়েজ বিশ্বের ৩য় প্রাচীন এয়ারওয়েজ। প্রথমদিকে অভ্যন্তরীন রুটে যাত্রী সেবা দিলেও ১৯৩৫ সাল থেকে এটি আন্তর্জাতিক রুটে যাত্রী সেবা দেওয়া শুরু করে। কান্তাস (Qantas) এর পূর্ণরূপ “কুইন্সল্যান্ড অ্যান্ড নর্দার্ন টেরিটোরি এরিয়াল সার্ভিস” (Queensland and Northern Territory Aerial Services) যার ডাকনাম “দ্য ফ্লাইং ক্যাঙ্গারু”। ২০১২ সালে ক্ষতির মুখে পরে কান্তাস এয়ারওয়েজ ১০ বছরের জন্য এমিরেটস্ এয়ারলাইন্সের সঙ্গে চুক্তি করে। চুক্তি করার পরের বছরের রেকর্ড পরিমাণ মুনাফা আয় করে কান্তাস এয়ারওয়েজ। আর বছরে বছরে উন্নতি করে তারা এখন বিশ্বের ২য় সেরা এয়ারলাইন্স।

এয়ার নিউজিল্যান্ড

এয়ার নিউজিল্যান্ড (Air New Zealand)
এয়ার নিউজিল্যান্ড (Air New Zealand)

বিশ্বের সবচেয়ে সেরা এয়ারলাইন্স বা বিমান সংস্থা হল নিউজিল্যান্ড এর জাতীয় এয়ারলাইন্স বা বিমান সংস্থা এয়ার নিউজিল্যান্ড (Air New Zealand)। এয়ারলাইন্সটি নিউজিল্যান্ড এর অকল্যান্ডে (Auckland) অবস্থিত। ১৯৬৫ সালে এয়ার নিউজিল্যান্ড (Air New Zealand) নামকরণের পূর্বে এর নাম ছিল “তাসমান এম্পায়ার এয়ারওয়েজ লিমিটেড” (Tasman Empire Airways Limited, TEAL) যা শুধুমাত্র অস্ট্রেলিয়া – নিউজিল্যান্ড রুটে যাত্রীসেবা প্রদান করতো। তবে বর্তামানে এটি প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল, অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাজ্যসহ ১৯ টি দেশের ৩১ টি আন্তর্জাতিক ও ২১ টি অভ্যন্তরীন রুটে যাত্রী সেবা দিয়ে থাকে৷

এয়ার নিউজিল্যান্ড এ ফ্লাইট চলাকালীন অভিজ্ঞতার ক্ষেত্রে সীট কমফোর্ট, ফ্লাইট চলাকালীন বিনোদন, কেবিনের অবস্থা এবং পরিচ্ছন্নতা, পরিবেশিত খাবারের মান খুবই উচ্চমানের। দীর্ঘ যাত্রার ফ্লাইট পরিচালনার জন্য এই এয়ার নিউজিল্যান্ড এয়ারলাইন্স সাধারণত বোয়িং জেট (Boeing Business Jet) বিমানগুলো ব্যবহার করে থাকে (বোয়িং ৭৭৭-২০০ইআর, বোয়িং ৭৮৭-৯ এবং বোয়িং ৭৭৭-৩০০ইআর)৷ পক্ষান্তরে, অভ্যন্তরীণ রুট এবং সল্প পাল্লার যাত্রার ক্ষেত্রে এয়ারলাইন্সটি এয়ারবাস (Airbus) বিমান ব্যবহার করে থাকে (এয়ারবাস এ৩২০নিও, এয়ারবাস এ৩২০-২০০, এয়ারবাস এ৩২১নিও)৷

আরো কিছু এয়ারলাইন্স – কাতার এয়ারওয়েজ (Qatar Airways), অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ (All Nippon Airways), থাই এয়ারওয়েজ (Thai Airways), তুর্কিশ এয়ারলাইন্স (Turkish Airlines), ইতিহাদ এয়ারওয়েজ (Etihad Airways), মালায়েশিয়া এয়ারলাইন্স (Malaysia Airlines), ভার্জিন আমেরিকা (Virgin America), জাপান এয়ারলাইন্স (Japan Airlines), কোরিয়ান এয়ারলাইন্স (Korean Airlines) ইত্যাদি।

আশাকরি পোস্টটি ভালো লাগলে সবার সাথে শেয়ার করবেন। আর যেকোনো ধরনের মন্তব্য জানাতে বা প্রশ্ন করতে কমেন্ট করুন।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

38 Shares
Share via
Copy link