টপ ৫: বছরের সেরা ল্যাপটপ (২০১৭)

বলা হচ্ছিলো স্মার্টফোনের অত্যাধিক জনপ্রিয়তার কারনে জনপ্রিয়তা ও বাজার দুটোই হারাবে ল্যাপটপ। তবে এতো দ্রুত ল্যাপটপ হারিয়ে যাচ্ছে না। তারা রুপান্তরিত হচ্ছে, বিবর্তিত হচ্ছে এবং যুগের সাথে তাল মিলাতে অভিযোজন করছে। যদিও দেখতে তারা প্রায় এখনও আগের মতই, তবে পারফর্মেন্সের দিক থেকে তারা পূর্বের ল্যাপটপ গুলো থেকে খুবই শক্তিশালী। বর্তমানে বাজারে ঘুরেফিরে ৩ টি অপারেটিং সিস্টেম এর ল্যাপটপই বেশি বিক্রিত এবং সর্বাধিক জনপ্রিয়। এরা হল ম্যাক ওএস, উইন্ডোজ (উইন্ডোজ ১০) এবং ক্রোম ওএস। তবে বাজারে ল্যাপটপের ব্র্যান্ড কমতি নেই। অ্যাপল (Apple), এইচপি (HP), লেনোভো (Lenovo), ডেল (Dell), আসুস (Asus), মাইক্রোসফট (Microsoft), রেজার (Razer), এসার (Acer), স্যামসাং (Samsung) সহ আর কত কি। আর কাজের ধরণ ভেদেও দেখা যায় বিভিন্ন ল্যাপটপ যেমন: গেমিং ল্যাপটপ, টু-ইন-ওয়ান ল্যাপটপ, মাল্টিমিডিয়া ল্যাপটপ ইত্যাদি।

যাইহোক, ল্যাপটপ কিনার আগে আমরা সবাই কম বেশি খোঁজ নিয়ে নেই যে বাজারে কোন ল্যাপটপটি সবচেয়ে সেরা ল্যাপটপ বা কোন ল্যাপটপটি আমার কাজের জন্য উপযুক্ত যা অনেক সময় সাপেক্ষ। আর কাজের ধরণ, লুক, পারফর্মেন্স ইত্যাদি ভেদে ২০১৭ সালে বেশ কিছু ভালমানের সেরা ল্যাপটপ বেরিয়েছে। তাই আপনার সুবিধার্তে ২০১৭ সালের সেরা ৫ টি ল্যাপটপ নিয়ে আমাদের আয়োজন। তো চলুন দেখে নেই ২০১৭ সালের সেরা ৫ টি ল্যাপটপ সম্পর্কে:

২০১৭ সালের সেরা ৫ টি ল্যাপটপ

(Best Laptops of 2017)

মাইক্রোসফট সারফেস প্রো

মাইক্রোসফট সারফেস প্রো

মাইক্রোসফট সারফেস প্রো

২০১৭ সালের সেরা ল্যাপটপ এর ৫ম স্থানে রয়েছে মাইক্রোসফট সারফেস প্রো (Microsoft Surface Pro)। এটি বাজারের সেরা সারফেস ল্যাপটপ এবং টু-ইন-ওয়ান ল্যাপটপ। এটি একটি স্টাইলিশ, লাইটওয়েট এবং শক্তিশালী ট্যাবলেট যাকে ল্যাপটপের হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। এর কারন ট্যাবলেটের ন্যায় স্ক্রীনের সাথে এতে আছে ডিটাচেবল কীবোর্ড (Detachable keyboard) যা খুলে রাখলেই ল্যাপটপ হবে ট্যাবলেট। আর যুক্ত করে নিলেই ট্যাবলেট হবে ল্যাপটপ।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: ২০১৭ সালের সেরা ৫ টি স্মার্টফোন

উপরের কথাগুলো শুনে মনে হতে পারে যে এই মাইক্রোসফট সারফেস প্রো (Microsoft Surface Pro) ল্যাপটপটি হয়তো অতটা শক্তিশালী নয়। তবে অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি যে এটি অন্যান্য ল্যাপটপের মতই ভারি (ওজন নহে ?) কাজ করতেও সক্ষম। এতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে আছে মাইক্রোসফটের নিজেদের উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম। প্রসেসর হিসেবে আছে ৭ম জেনারেশনের কেবি লেক প্রসেসর (কোর আই৫ এবং কোর আই৭)। মাইক্রোসফটের এই সারফেস প্রো তে আছে ৪ থেকে ৮ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম সুবিধা। আছে ১২৮ জিবি থেকে ১ টেরাবাইট পর্যন্ত এসএসডি স্টোরেজ। নতুন এই ট্যাবলেট + ল্যাপটপের ব্যাটারি লাইফ প্রায় ১৩.৫ ঘণ্টা। এছাড়াও মাইক্রোসফটের এই ডিভাইসটি ৪জি এলটিই সংযোগ সমর্থন করবে। তাছাড়া ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরার সাথে আরো আছে ৮ মেগাপিক্সেলর রিয়ার ফেসিং ক্যামেরা।

লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা

লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা

লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা

লিস্টের পরবর্তী স্থানে রয়েছে লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা (Lenovo ThinkPad X1 Yoga)। প্রতি বছরের মত এই বছরও লেনোভো বাজারে এনেছে তাদের থিংকপ্যাড সিরিজের ল্যাপটপ যার নাম লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা। এটি একটি কনভার্টেবল ল্যাপটপ মানে আপনি চাইলে একে ল্যাপটপ এবং ট্যাব দুইভাবেই ব্যবহার করতে পারবেন। ওজন এবং পুরুত্বের দিক থেকেও এটা অন্যতম কেননা এর ওজন মাত্র ১.৩৬ কেজি। এতে আছে ওএলইডি (OLED) ডিসপ্লে যা আপনাকে দিবে বড় স্ক্রীনে টিভি দেখার মত সুবিধা।

লেনোভো থিংকপ্যাড এক্স১ ইয়োগা (Lenovo ThinkPad X1 Yoga) ল্যাপটপটিতে প্রসেসর হিসেবে আছে ৭ম জেনারেশনের (7th Generation) কোর আই৭ প্রসেসর (৩.৯ গিগা হার্জ পর্যন্ত)। আরো আছে ১৬ জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম। এতে গ্রাফিক্স কার্ড হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ৬২০। এর সাথে থাকছে একটি ডোকেবল পেন (Dockable & Rechargeable Pen), যেটার সাহায্য আপনি সব ধরনের কাজই করতে পারবেন। আর বিস্ময়কর হলেও সত্যি যে এই পেন বা কলমটিকে মাত্র ১৫ সেকেন্ড চার্জ দিলেই এটি দিয়ে ১০০ মিনিট পর্যন্ত কাজ করতে পারবেন। এছাড়া স্প্রেডশীট তৈরি বা রিপোর্ট লিখার সময় স্ক্রীনের সামনের কীবোর্ডর অংশটুকু ব্যবহার করতে পারবেন কারন আপনি চাইলে কীবোর্ডের বাটনগুলো লুকিয়ে ফেলতে পারবেন (বাটন গুলো নিচে চলে যাবে)।

এইচপি স্পেকটার x360

এইচপি স্পেকটার x360

এইচপি স্পেকটার x360

সেরা ল্যাপটপ এর লিস্টে ৩য় স্থানে রয়েছে (HP Spectre x360)। এইচপি র স্পেকটার সিরিজের সবগুলো ল্যাপটপই সকল ধরনের কাস্টমারেরই পছন্দ হওয়ার মতোই একটি ল্যাপটপ। যার সর্বশেষ সংস্করণটির নাম এইচপি স্পেকটার x360। এইচপি র দাবি এই এইচপি স্পেকটার x360 ল্যাপটপটি বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা ল্যাপটপ। এটি একটি টু-ইন-ওয়ান ল্যাপটপ মানে আপনি চাইলে এই ল্যাপটপটিকে ল্যাপটপ এবং ট্যাব দুইভাবেই ব্যবহার করতে পারবেন। আর এর x360 এর মানে হল আপনি একে এর স্ক্রীন এবং কীবোর্ড এর মাঝে ৩৬০° করা যাবে।

আরো পড়ুন:  ম্যাক বনাম উইন্ডোজ: কোন অপারেটিং সিস্টেমের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ সেরা?

এইচপি স্পেকটার x360 ল্যাপটপটিতে প্রসেসর হিসেবে আছে ৭ম জেনারেশনের (7th Generation) কোর আই৫ এবং কোর আই৭ প্রসেসর। আরো আছে ৮ জিবি থেকে ১৬ জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেল এইচডি, ইন্টেল ইউএইচডি এবং এনভিডিয়া জিফোর্স গ্রাফিক্স কার্ড। ল্যাপটপটিতে ইউএসবি-এ এবং ইউএসবি-সি দুটো পোর্টই আছে। যদিও পাতলা করার জন্য এতে কোন এসডি কার্ড কিংবা মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট রাখা হয়নি। আর খুব পাতলা হওয়ায় এর ব্যাটারি অতটা শক্তিশালী নয়। তবে অন্তত একটানা ছয় থেকে সাত ঘণ্টা পর্যন্ত এইচপির এই এইচপি স্পেকটার x360 ল্যাপটপটিতে কাজ করা সম্ভব। এর চার্জিং সিস্টেমও খুবই দ্রুত। মাত্র ৬০ মিনিটে ০ থেকে ৮০% চার্জ দেওয়া সম্ভব।

ম্যাকবুক প্রো ২০১৭

ম্যাকবুক প্রো ২০১৭

ম্যাকবুক প্রো ২০১৭

২০১৭ সালের ২য় সেরা ল্যাপটপ হল ম্যাকবুক প্রো ২০১৭ (MacBook Pro 13-inch)। বেশিরভাগ মানুষই দুটি কারণে ম্যাক কিনে থাকে। এরমদ্ধে একটি হল যে তারা ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম এর ফ্যান (পারফর্মেন্স এর কারনে) আর আরেকটি হল ম্যাকবুক তথা অ্যাপলের ব্র্যান্ডে আকৃষ্ট হয়ে বা অ্যাপল কোম্পানির সুখ্যাতির কারনে। যদি প্রথম কারনে আপনি ম্যাক কিনতে চান তবে আপনার জন্য ভালো হবে টাচ বার ছাড়া ১৩ ইঞ্চির ম্যাকবুক প্রো ২০১৭ (MacBook Pro 13-inch – without Touch Bar)। কেননা বহুল প্রতীক্ষিত ম্যাকবুকের এই টাচ বারটি তার দামের (টাচ বারের জন্য অতিরিক্ত ৩০০ ডলার) সুবিচার করতে পারেনি। আর ২য় কারনে হলে অবশ্যই টাচ বারসহ ১৩ ইঞ্চির ম্যাকবুক প্রো ২০১৭ এ কিনা উচিৎ। কেননা এতো দাম দিয়ে কেনা ম্যাকটির লুক (ডিজাইন) এর দিকেও তো দেখতে হবে ?।

২০১৭ এর এই ম্যাকবুক প্রোর সবগুলো মডেলেই আপনি পাবেন ইন্টেলের ডুয়েল কোর ৭ম জেনারেশনের (7th Generation) কোর আই৫ প্রসেসর (৩.১ গিগা হার্জ পর্যন্ত)। আছে ৮ জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম এবং ইন্টেল আইরিশ প্লাস গ্রাফিক্স ৬৪০ ও ইন্টেল আইরিশ প্লাস গ্রাফিক্স ৬৫০ মডেলের দুইটি ভিন্ন গ্রাফিক্স কার্ড। স্টোরেজের জন্য আপনি পাবেন ১২৮ জিবি, ২৫৬ জিবি এবং ৫১২ জিবি এর ৩ টি ভিন্ন মডেল। আর অবশ্যই টাচ বারসহ ১৩ ইঞ্চির ম্যাকবুক প্রো ২০১৭ কিনলে সাথে পাবেন ওএলিডি (OLED) ডিসপ্লের টাচ বারটাচ আইডি। তবে তুলনামূলকভাবে ম্যাকবুক প্রো ২০১৭ (MacBook Pro 13-inch) এর দাম কিছুটা বেশি।

ডেল এক্সপিএস ১৩

ডেল এক্সপিএস ১৩

ডেল এক্সপিএস ১৩

২০১৭ সালের সেরা ল্যাপটপ টি হলো ডেল এক্সপিএস ১৩ (Dell XPS 13)। এবছর স্যামসাং বা অ্যাপল তাদের ফ্ল্যাগশিপ বেজেললেস ডিসপ্লের স্মার্টফোনগুলো বের করার আগেই ডেল তাদের ল্যাপটপে নান্দনিক এ ধারণা আনে। এতে বেজেল প্রায় শূন্য, যার নাম “ইনফিনিটি এজ”। কয়েক বছর ধরেই ডেল এক্সপিএস সিরিজের ল্যাপটপ তৈরি করলেও এ বছরই এই এক্সপিএস সিরিজের কন ল্যাপটপ প্রযুক্তি-প্রেমীদের নজরে আসে। আর যার মূল কারন সেই বেজেললেস “ইনফিনিটি এজ” ডিসপ্লে। এর স্ক্রীন সাইজ ১৩.৩ ইঞ্চি হলেও এর বেজেল না থাকার কারনে মনে হয় যেন ১১ ইঞ্চি ল্যাপটপ। ডিসপ্লে (টাচ ডিসপ্লে) রেজুলেশন ৩২০০ × ১৮০০ পিক্সেল (QHD+) পর্যন্ত। ৭ম জেনারেশন (7th Generation) এর এই ল্যাপটপটি ইন্টেলের কোর আই৩ এবং কোর আই৫ এই দুইটি ভিন্ন প্রসেসরে (৩.৬ গিগা হার্জ পর্যন্ত) পাওয়া যায়। আছে এসএসডি (সলিড ডিস্ক ড্রাইভ) এবং ৮ জিবি পর্যন্ত ডিডিআর৩ র‍্যাম নেওয়ার সুবিধা। ডেল এক্সপিএস ১৩ (Dell XPS 13) তে আরো আছে ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স কার্ড (Intel HD Graphics) এবং বিভিন্ন ফ্রী ও প্রিমিয়াম প্রি-লোডেড সফটওয়্যার।

তবে চাঁদের যেমন কলঙ্ক থাকে তেমনি ডেল এক্সপিএস ১৩ (Dell XPS 13) এরও একটি দোষ রয়েছে আর তা হল এর ক্যামেরার অবস্থান। ল্যাপটপটিতে কোন বেজেল না থাকায় স্ক্রীনের উপরে ক্যামেরা দেওয়া সম্ভব হয়নি। আর তাই ডেল এক্সপিএস ১৩ (Dell XPS 13) এর ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে স্ক্রীন এর নিচে যা কিছুটা অদ্ভুত। যদিও বেশির ভাগ মানুষই এর দিকে তেমন একটা খেয়াল করে না তবুও যারা খুব বেশি ভিডিও কলিং বা রেকর্ডিং এর কাজ করবেন তারা বিষয়টা ভেবে নিবেন।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: ২০১৭ সালের সেরা ফ্রি অ্যান্ড্রয়েড গেমস

২০১৭ সালের সেরা আরো কিছু ল্যাপটপ: লেনোভো ইয়োগা ৯২০ (Lenovo Yoga 920), এসার ক্রোমবুক (Acer Chromebook), ডেল এক্সপিএস ১৫ (Dell XPS 15), রেজার ব্লেড (Razer Blade), হুয়াওয়ে মেটবুক এক্স (Huawei MateBook X), স্যামসাং ক্রোমবুক প্রো (Samsung Chromebook Pro) ইত্যাদি।

আশাকরি পোস্টটি ভালো লাগলে আপনার ফ্রেন্ডদের সাথে শেয়ার করবেন। আর যেকোনো সাজেশন বা পোস্ট সম্পর্কে কোন তথ্য/মন্তব্য জানাতে নিচে কমেন্ট করবেন ?।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *