টপ ৫: টুইটার সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কাছে টুইটার বেশ পরিচিত একটি নাম। এটি একটি মাইক্রো-ব্লগিং সোস্যাল নেটওয়ার্ক। তবে ফেসবুকের মত অতটা জনপ্রিয় না হলেও টুইটার কিছু কিছু দেশে খুবই জনপ্রিয়। বিভিন্ন নেতিবাচক খবরে ফেসবুক যখন জর্জরিত, তখন টুইটার সবার কাছেই অনেকটা গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। এমনকি এই গ্রহণযোগ্যতা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছেও উপরের দিকেই। আর তাইতো, প্রতিদিনই তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যুতে তীব্র ক্ষোভের বা প্রশংসামূলক টুইট করেন। যাই হোক চলুন আজকে এই মাইক্রো-ব্লগিং সোস্যাল নেটওয়ার্ক টুইটার সম্পর্কে জানা অজানা কিছু তথ্য দেখে নেই

টুইটার সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য

টুইটারের প্রথম টুইট

টুইটারের প্রথম টুইটটি করা হয় ২০০৬ সালের ২২ মার্চ। আর প্রথম টুইটটি করেন টুইটারের অন্যতম সহ – প্রতিষ্ঠাতা এবং বর্তমান সিইও জ্যাক ডরসি। তখন অবশ্য টুইটারের নাম ছিলো “Twttr” (সেই দশকে vowel বাদ দিয়ে নাম ছোট করার প্রবনতা ছিলো)। ডরসি রাত ০২:৫০ (02:50 AM) এ টুইটটি করেন। আর টুইটটি ছিলো, “just setting up my twttr.”।

টুইটারের বিখ্যাত পাখিটির নাম ল্যারি

টুইটারের বিখ্যাত পাখি ল্যারি
ল্যারি

এমনকি যারা নিয়মিত টুইটার ব্যবহার করেন তারাও হয়ত জানেন না যে টুইটারের চির পরিচিত নীল পাখিটির নাম ল্যারি

যদিও টুইটারের সূচনা হয়েছিল ২০০৬ সালে, তবে ল্যারির নামটি আসলে ২০১২ সালের আগে পর্যন্ত নিশ্চিত হয়নি। টুইটার ম্যানেজার রায়ান সার্ভার একটি টুইটে ল্যারির নামটি নিশ্চিত করেছেন।

টুইটারের প্রথম হ্যাশট্যাগ

২০০৭ সালের ২৪ অগাস্ট, এই টুইটারের মাধ্যমেই ডিজিটাল জগতে হ্যাশট্যাগের পরিচয় হয়। আর এই কাজটি করেন ক্রিস মেসিনা (Chris Messina)। হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করা হয় যাতে ব্যবহারকারীরা কোনো নির্দিষ্ট থিম বা বিষয়ের সাথে সহজে যুক্ত হতে পারে। বিভিন্ন ইভেন্ট এবং সম্মেলনের সময় একই বিষয়ের পোস্টগুলো পেতে সহায়তা করার জন্য হ্যাশট্যাগের ব্যবহার লক্ষ্য দেখা যায়।

প্রথমদিকে, হ্যাশট্যাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে কিনা তা নিয়ে চারদিকে সন্দেহ ছিল, কেননা টুইটারের কাছে একে খুবই প্রযুক্তিগত বলে মনে হয়েছিল এবং “thing for nerds” বলে সমালোচিতও হয়েছিল। আর বর্তমানে এই হ্যাশট্যাগ ফেসবুক, স্ন্যাপচ্যাট, ইনস্টাগ্রাম থেকে শুরু করে সকল ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মেই ছড়িয়ে পড়েছে।

ফ্রেন্ডস্টকার?

টুইটারের সহ – প্রতিষ্ঠাতা ইভান উইলিয়ামস টুইটারের নাম হিসেবে প্রস্তাব করেন “ফ্রেন্ডস্টকার (FriendStalker)“। Stalk মানে হল – চুপিসাড়ে অনুসরণ করা। তারমানে FriendStalker মানে হল, যে চুপিসাড়ে বন্ধুদের অনুসরণ করে। ভাবুন তো একবার এই নাম হল কি হত টুইটারের? বর্তমান অনলাইন সিস্টেমে এমন একটি নাম নিয়ে টিকে থাকা কঠিন হয়ে যেত। তবে টুইটারের ভাগ্য ভালো যে টুইটারের আরেক সহ – প্রতিষ্ঠাতা নোয়াহ গ্লাস “Twitter” নামটি প্রস্তাব করেন এবং এটি চূড়ান্ত বাছাই হয়।

কিছু টুইটার পরিসংখ্যান

চলুন এখন দেখে নেই কিছু টুইটার পরিসংখ্যান:

  • আগে টুইটারের লিমিট ১৪০ অক্ষর হলেও ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে লিমিট দ্বিগুণ করে ২৮০ করা হয়।
  • বর্তমানে টুইটারে প্রায় ১.৩ বিলিয়ন ব্যবহারকারী আছে, যার মধ্যে মাত্র ৩২৮ মিলিয়ন ব্যবহারকারী এক্টিভ আছেন।
  • গড়ে একজন টুইটার ব্যবহারকারীর ৭০৭ জন ফলোয়ার রয়েছে। কিন্তু প্রায় ৩৯১ মিলিয়ন টুইটার ব্যবহারকারীর কোনও ফলোয়ারই নেই।
  • প্রতিদিন প্রায় ৫০০ মিলিয়ন টুইট করা হয়, যার মানে প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ৬,০০০ টুইট।
  • টুইটার অনুমান অনুযায়ী ৪৮ মিলিয়ন এক্টিভ ব্যবহারকারী আসলে বট (Bot)।
  • ২০১৭ সালে বারাক ওবামার করা টুইটটি এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে জনপ্রিয় টুইট। টুইটটিতে এখনো পর্যন্ত প্রায় ৪.৪১ মিলিয়ন লাইক পড়েছে। (শেষ আপডেট: ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯)
  • ২০১৯ সালের ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আপডেটে টুইটারে সবচেয়ে বেশি ফলোয়ার আছে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা‘র। তার ফলোয়ার সংখ্যা প্রায় ১১১ মিলিয়ন। ১০৮ মিলিয়ন এবং ১০৭ মিলিয়ন ফলোয়ার নিয়ে ২য় এবং ৩য় স্থানে আছেন কেটি পেরি এবং জাস্টিন বিবার
  • টুইটারে সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত ইমোজি হল “Tears of Joy (😂)”।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

2 Responses

  1. December 30, 2019

    […] প্রথম টুইটটি ছিল খুবই মজার এবং উদ্ভাবনী। ২০০৯ […]

  2. January 12, 2020

    […] আরো পড়ুন: টুইটার সম্পর্কে জানা অজানা ত… […]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

0 Shares
Share via
Copy link