টপ ৫: পাবজি সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে অনলাইন মাল্টিপ্লেয়ার গেমস গুলোর মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছে পাবজি (PUBG) বা প্লেয়ার আননোউন্‌স ব্যাটল গ্রাউন্ড। এর ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও গেমটি হয়ে উঠেছে অনেক জনপ্রিয়, ছোট থেকে বড় সবাই খেলছে পাবজি। গেমসটি এতটাই আসক্তিকর যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কম্পিউটারের সামনে বসে বা মোবাইল হাতে খেললেও অনিহা আসে না। চলুন আজকে আকাশচুম্বী জনপ্রিয় এই গেমস – পাবজি সম্পর্কে জানা অজানা কিছু তথ্য জেনে নেই।

পাবজি সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য

পাবজি গেমের ইতিহাস এবং নামকরণ

পাবজি গেমের ইতিহাস এবং নামকরণ
পাবজি গেমের ইতিহাস এবং নামকরণ

পাবজি গেমের কনসেপ্ট মূলত ২০০০ সালে প্রকাশিত কিমজি ফুকাসাকু পরিচালিত “ব্যাটেল রয়্যাল” নামক জাপানী একটি মুভি থেকে নেওয়া। মুভিতে বেশকিছু ছাত্র-ছাত্রীদের একটি অজানা দ্বীপে নিয়ে, কিছু খাবার, পানি এবং অস্ত্র দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। আর তাদের গলায় বেঁধে দেয়া হয় একটি ব্যান্ড, পালানোর চেষ্টা করলেই গলায় বাঁধা সেই ব্যান্ড ফেটে মারা পড়তে হবে। দ্বীপটি থেকে সেই বেঁচে ফিরতে পারবে, যে বাকি সবাইকে হত্যা করে একা ঐ দ্বীপে টিকে থাকতে পারবে।

এরপর ২০১২ সালে “দি হাঙ্গার গেমস” নামে একই কনসেপ্টের আরো একটি মুভি বের হয়। মুভিটি জনপ্রিয় হলেও এই কনসেপ্ট নিয়ে তখন কোন গেম ছিল না। আর সেই সুযোগে এর প্রতিষ্ঠাতা এবং ব্লুহোল (Bluehole) নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সদস্যরা মিলে তৈরি করে আমাদের সবার প্রিয় পাবজি।

পাবজির নামকরণের ব্যাপারটি এখনো পরিষ্কার নয়। তবে অনেকের মতে গেমটির স্রষ্টা ‘Player Unknown’ নাম দিয়ে বিভিন্ন অনলাইন গেমস খেলতেন। আর নামটি পছন্দসই হওয়াতেই গেমের সাথে তিনি অনলাইন গেমের নিকনেমটিও জুড়ে দেন (PlayerUnknown’s Battlegrounds – PUBG)। নিচে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে পাবজির রিলিজ ডেট দেওয়া হল।

বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে পাবজির রিলিজ ডেট
  • উইন্ডোজ: সরবপ্রথম পাবজি রিলিজ হয় উইন্ডোজের জন্য। ২০১৭ সালের ২৩ মার্চ বেটা ভার্সন এবং পরে ঐ বছরের ২০ ডিসেম্বর ফুল ভার্সন বিশ্বব্যাপী রিলিজ হয়।
  • এক্সবক্স ওয়ান: এক্সবক্স ওয়ানের প্রারম্ভিক অ্যাক্সেস ভার্সন রিলিজ হয় ২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর এবং অফিশিয়াল রিলিজ হয় ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে।
  • মোবাইল ভার্সন (অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস): মোবাইল ভার্সন প্রারম্ভিক অ্যাক্সেস রিলিজ হয় ২০১৮ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি এবং বিশ্বব্যাপী রিলিজ হয় ঐ বছরের ১৯ মার্চ।
  • প্লেস্টেশন ৪: প্লেস্টেশন ৪ এ পাবজি রিলিজ হয় ২০১৮ সালের ৭ ডিসেম্বর।
  • পাবজি লাইট: ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে থাইল্যান্ডে পাবজি লাইট রিলিজ পায়।
  • গুগল স্টেডিয়া: ২০২০ সালের ২৮ এপ্রিল গুগল এর ক্লাউড গেমিং সার্ভিসে গুগল স্টেডিয়া তে রিলিজ পায় পাবজি।

উইনার উইনার চিকেন ডিনার

উইনার উইনার চিকেন ডিনার
উইনার উইনার চিকেন ডিনার

পাবজিতে সবচেয়ে মজার এবং জনপ্রিয় বাক্য হল “উইনার উইনার চিকেন ডিনার (Winner Winner Chicken Dinner)“। আমরা সবাই চাই উইনার উইনার চিকেন ডিনার পেতে। কিন্তু এই চিকেন ডিনারের রহস্য কি? কেনই বা এই নাম আসল পাবজিতে?

বাক্যটি আসলে পাবজির নির্মাতারা বের করেনি। এর উৎপত্তি ১৯৩০ এর দশকের অর্থনৈতিক মন্দার সময়কালে। সেকালে লোকেরা প্রচুর জুয়া খেলতো। আর জুয়ায় জিতলে, তবেই রাতের খাবারের জন্য তারা মুরগি কিনতে পারতেন। আর এভাবইে কালক্রমে গেমটি বর্তমান রুপ পায়।

পাবজির প্রতিষ্ঠাতা

পাবজির প্রতিষ্ঠাতা
পাবজির প্রতিষ্ঠাতা

পাবজি গেমটি সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। তবে আমরা কি এর পেছনের মানুষটিকে জানি? হয়তো বেশিরভাগই বলবেন “না”। সেই ব্যাক্তিটি হল ব্রেন্ডন গ্রিন (Brendan Greene)। তিনিই পাবজির প্রতিষ্ঠাতা। আইরিশ এই গেম ডেভেলপার গেমটির আইডিয়া পেয়েছিল “হাঙ্গার গেমস” মুভি দেখার সময়ে। বলা হয়ে থাকে, গেমটি ডেভেলপের আগে গ্রিনের কোন প্রোগ্রামিং জ্ঞান তার ছিল না। এই গেমটি ডেভেলপ করার জন্যই তিনি প্রোগ্রামিং শিখেন।

পাবজি কিভাবে আয় করে?

পাবজি যেভাবে আয় করে
পাবজি যেভাবে আয় করে

অন্যান্য ফ্রী গেমের মতো পাবজির প্রাথমিক আয়ের উৎসও ইন-অ্যাপ পারচেজ (In-app Purchase)। এছাড়া বিভিন্ন পেমেন্ট এবং ফি থেকেও অর্থ উপার্জন করে থাকে। পাবজির আয়ের উৎসগুলো হল:

  • ইন-অ্যাপ পারচেজ (In-app Purchase): খেলার মধ্যেই বিভিন্ন প্রোডাক্ট বিক্রি করে।
  • স্পন্সরশীপ (Sponsorship)
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সাথে কোলাবরেশন
  • স্ট্রীমিং করে এবং স্ট্রীমারদের থেকে
  • টুর্নামেন্ট হোস্ট করে
  • প্লেয়ারদের ব্যক্তিগত তথ্য বিক্রি করে: “আপনি যদি পণ্যটির জন্য অর্থ প্রদান না করে থাকেন তবে মনে রাখবেন আপনিই পণ্য”। এই তথ্যের উপযুক্ত প্রমান না থাকলেও অনেকের মতে প্লেয়ারদের ব্যক্তিগত তথ্য বিক্রি করেও পাবজি আয় করে থাকে।

প্রচারণার পিছনে ১ টাকাও খরচ করেনি পাবজি

আকাশচুম্বী জনপ্রিয় এই পাবজির প্রচারণার জন্য এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান – ব্লুহোল (Bluehole) – কোন অর্থই ব্যয় করেনি। বিস্ময়কর হলেও আপনি ঠিকই শুনেছেন। তবে গেমটি এত জনপ্রিয় হল কিভাবে? এটা বিশ্বাস করা হয় যে গেমটি তার অনন্য গেমপ্লের জন্যই মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে এই তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

পাবজি সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য

পাবজি সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য
পাবজি সম্পর্কে জানা অজানা তথ্য
  • পাবজি আপনাকে ১০০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করতে পারে।
  • পাবজিতে বুলেটগুলি আপনাকে জলে আঘাত করবে না।
  • পাবজি মোবাইল গেমের “ইরাঞ্জেল” নামটি ব্রেন্ডেন গ্রিনের মেয়ে ইরিনের নাম থেকে অনুপ্রাণিত।
  • পাবজি গেমারদের কাছে পোচিংকি নামটি খুব পরিচিত। এই নামে সত্যিই একটি জায়গা রয়েছে। রাশিয়াতে বেশ কয়েকটি জায়গা রয়েছে পোচিংকি নামে।
  • সম্প্রতি ১,৩৪২,৮৫৭ জন পাবজি প্লেয়ার একই সময়ে অনলাইনে গেমটি খেলে রেকর্ড করে যা পূর্বে ছিল ডোটা ২ এর দখলে।
  • ২০ জুন ২০১৮ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী প্রায় ৫০ মিলিয়ন গেম বিক্রি হয়েছে।
data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 Shares
Share via
Copy link