প্লাস্টিকে ব্যবহৃত রিসাইক্লিং চিহ্ন কি এবং এর নম্বরগুলোর মানে কি?

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্লাস্টিকের ব্যবহার বেড়েই চলছে। ঘরে-বাইরে সবখানেই এখন দেদারছে ব্যবহৃত হচ্ছে প্লাস্টিকের বিভিন্ন পণ্য। আগে বোতল বা বাটির মত কিছু নির্ধারিত প্লাস্টিক নির্মিত পণ্য ব্যবহার করলেও এখন ঘরের সকল প্রকার বাসনপত্র থেকে শুরু করে আসবাবপত্র, ফুলের টব এমনকি ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্পও এই প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে। কিন্তু আপনি কি কখনো লক্ষ্য করেছেন যে, এসব প্লাস্টিকের পণ্যের গায়ে থাকে একটি ত্রিভুজ আকৃতির সাঙ্কেতিক চিহ্ন? এবং সেই চিহ্নগুলোর মাঝে এবং নিচে থাকা একটি নাম্বার ও কিছু ইংরেজি অক্ষর? এটি হল রিসাইক্লিং চিহ্ন। কিন্তু কেনই বা প্লাস্টিকে এই সাঙ্কেতিক চিহ্ন ব্যবহার করা হয়? আর কোন সাঙ্কেতিক চিহ্নের মানেই বা কি? চলুন জেনে নেই আজকের এই আর্টিকেল থেকে।

রিসাইক্লিং চিহ্ন

প্লাস্টিকে ব্যবহৃত রিসাইক্লিং চিহ্ন কি এবং এর নম্বরগুলোর মানে কি?
প্লাস্টিকে ব্যবহৃত রিসাইক্লিং চিহ্ন কি এবং এর নম্বরগুলোর মানে কি?

রিসাইক্লিং চিহ্ন এমন একটি চিহ্ন যা ঐ প্লাস্টিকের পণ্যটি কি দিয়ে তৈরি তা চিহ্নিত করে। আমেরিকার রিসাইক্লিং বা পুনঃব্যবহারের প্রতিষ্ঠানগুলোর বিভিন্ন ধরনের প্লাস্টিককে বিভিন্ন শ্রেণীতে বিভাজন করার কাজকে সহজ করার জন্য ১৯৮৮ সালে দ্য সোসাইটি অব দ্য প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রি, SPI (বর্তমানে প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রি এসোসিয়েশন) এই কোডিং পদ্ধতি শুরু করে। তবে ২০০৮ সাল থেকে এটি এএসটিএম ইন্টারন্যাশনাল (ASTM International) নামে একটি আন্তর্জাতিক মানের সংস্থা দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছে।

প্লাস্টিকের কাঁচামাল, ব্যবহারবিধি, তা কতটা টেকসই এবং পরিবেশ বান্ধব, ব্যবহার যোগ্যতার সময়সীমা ইত্যাদি বিবিধ বিষয় এই রিসাইক্লিং চিহ্ন দেখে বুঝা যায়। এসব চিহ্ন, নম্বর ১ থেকে ৭ পর্যন্ত হয়ে থাকে এবং ত্রিভুজাকৃতি চিহ্নের নিচে বা পাশে থাকে সাংকেতিক কোড।

রিসাইক্লিং চিহ্নে থাকা নম্বরগুলোর মানে কি?

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ১

01
01

দৈনন্দিন জিবনে এই চিহ্নের প্লাস্টিকের ব্যবহারই সবচেয়ে বেশি। এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 1 বা 01। এএসটিএম ইন্টারন্যাশনালের মতে, এই শ্রেণির প্লাস্টিককে পলিইথিলিন টেরাফথালেট (Polyethylene Terephthalate) বলে। এর সাংকেতিক কোড PET (পিইটি) বা PETE (পিইটিই), যা ত্রিভুজ চিহ্নের নিচে লেখা থাকে। এ ধরনের প্লাস্টিক সাধারণত ব্যবহার করা হয় পানি, জুস, পানীয় সোডা ও তেলের জন্য বোতল বা কন্টেইনার তৈরিতে। আমাদের দেশে মিনারেল ওয়াটার এবং সমস্ত বেভারেজের বোতল এই ক্যাটাগরির প্লাস্টিক দিয়েই তৈরি। সাধারণত ব্যবহার শেষে এই ক্যাটাগরির প্লাস্টিক রিসাইক্লিং করে তৈরি করা হয় গালিচা, ব্যাগ, ছোট ছোট খেলনা ইত্যাদি।

এ ধরনের প্লাস্টিকের বোতল বা পাত্র অনেক দিন ব্যবহার করা ঠিক নয়। কারন দীর্ঘ সময় গরম স্থানে রাখলে তা থেকে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর পদার্থ নির্গত হয়। এ জন্য এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক একাধিকবার ব্যবহার করা ক্ষতিকর। আর তাই অনেকেই একে নিরাপদ প্লাস্টিক মনে করলেও বিশেষজ্ঞদের মতে এ ধরনের প্লাস্টিক এড়িয়ে চলা উচিৎ।

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ২

02
02

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 2 বা 02 এবং নিচে লেখা থাকে PE-HD কিংবা HDPE (এইচডিপিই, High Density Polyethylene)। যার মানে হলো, প্লাস্টিকটি উচ্চ ঘনত্বের পলিইথিলিন পদার্থের। এই প্লাস্টিক শক্ত ও স্বচ্ছ; যা কিছুটা উচ্চ তাপমাত্রায় ব্যবহার করা যায়। সাধারণত এই ধরনের প্লাস্টিক ব্যবহৃত হয় বাচ্চাদের খেলনা, শ্যাম্পুর বোতল, দুধের জগ, ঘর পরিষ্কারের পাত্র, জুসের বোতল, খাদ্যশস্য রাখার বৈয়াম, ডিটারজেন্ট পাউডারের বৈয়াম, মোটরের তেল রাখার গ্যালন, দই ও মাখনের কন্টেইনার ইত্যাদির জন্য। ব্যবহার শেষে এই প্লাস্টিককে রিসাইক্লিং করে তৈরি করা হয় কলম, বেঞ্চ, টেবিল ইত্যাদি। এই ধরনের প্লাস্টিক নিরাপদ এবং তা একাধিকবার ব্যবহার করা যায়।

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ৩

03
03

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 3 বা 03 এবং নিচে লেখা থাকে V কিংবা PVC (Vinyl)পিভিসি মানে হলো, পলিভিনাইল ক্লোরাইড। এই প্লাস্টিক সাধারণত খাবার মোড়ানোর প্যাকেট, প্লাম্বিং পাইপ, ডিটারজেন্ট বোতল, এটিএম কার্ড বা মেম্বারশিপ কার্ড, চিকিৎসা সরঞ্জামাদি ইত্যাদি তৈরি করতে ব্যবহৃত হয়। নিত্য ব্যবহারের জন্য এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক বোতল বা পাত্র অত্যন্ত বিপজ্জনক। ক্যান্সার ও গর্ভপাতের মতো বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা সৃষ্টি করে এই প্লাস্টিক। এছাড়া হাড় ক্ষয় ও যকৃতের সমস্যাও সৃষ্টি করতে পারে। বিভিন্নভাবে এটি পরিবেশেরও ব্যাপক ক্ষতি করে থাকে। বিশ্বব্যাপী এই প্লাস্টিকের বিপুল ব্যবহার দেখা গেলেও এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকা উচিত।

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ৪

04
04

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 4 বা 04 এবং নিচে লেখা থাকে PE-LD কিংবা LDPE (এলডিপিই, Low Density Polyethylene)। এর মানে হলো, কম ঘনত্বের পলিইথিলিন। এ ধরনের প্লাস্টিক স্বচ্ছ ও বাঁকানো যায়। তাই এই প্লাস্টিকের ব্যবহার সবচেয়ে বেশি দেখা যায় যায় শপিং ব্যাগ, পোশাক, গালিচা, হিমায়িত খাবার, রুটির ব্যাগ, ও খাবার মোড়ানোর পলিথিন ব্যাগে। রিসাইক্লিং পদ্ধতি যদিও এই প্লাস্টিকটির বাছাই প্রক্রিয়ায় এখনও স্বীকৃতি দেয়নি, তবুও এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকের ব্যবহার নিরাপদ

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ৫

05
05

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 5 বা 05 এবং নিচে লেখা থাকে PP (Polypropylene)। PP (পিপি) এর মানে হলো, পলিপ্রোপলিন। এ ধরনের প্লাস্টিক ব্যবহৃত হয় কেচাপের বোতল, সিরাপের বোতল, ঔষধের বোতল ইত্যাদিতে। এছাড়া রান্নাঘরে জিনিস ও মাইক্রোওয়েভেও এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়। এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকের জিনিস একাধিকবার ব্যবহার করা যায়। তাই নিরাপদ প্লাস্টিকগুলোর মধ্যে এই প্লাস্টিক অন্যতম

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ৬

06
06

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 6 বা 06 এবং নিচে লেখা থাকে PS (Polystyrene)। এর মানে হল পলিস্টাইরিন। এটি পেট্রোলিয়াম থেকে তৈরি। এই ধরনের প্লাস্টিক শক্ত বা নরম উভয় ধরনের হয়ে থাকে। সাধারণত এই প্লাস্টিক ব্যবহার হয় ডিমের খাঁচা, সিডি ও ডিভিডি, মগ, কাপ, পিরিচ ইত্যাদিতে। এছাড়া আমরা হোটেল থেকে ফোমের যে পাত্রে খাবার এনে থাকি, তা-ও এ ধরনের প্লাস্টিক থেকে তৈরি হয়। এই ধরনের প্লাস্টিক রিসাইক্লিং করা বেশ কষ্টসাধ্য। ফলে এটা পরিবেশের খুবই ক্ষতি করে। আর বিভিন্ন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যাও সৃষ্টি করে থাকে। তাই এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকের জিনিস ব্যবহার অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ

রিসাইক্লিং চিহ্নের মাঝে ৭

07
07

এই প্লাস্টিকের গায়ে রিসাইক্লিংয়ের ত্রিভুজ চিহ্নের মাঝে লেখা থাকে 7 বা 07 এবং নিচে লেখা থাকে OTHER কিংবা O। উপরে উল্লেখিত প্লাস্টিক ছাড়া বাকি সব প্লাস্টিক এই ধরনের। এই প্লাস্টিক বিভিন্ন পদার্থের মিশ্রণের মাধ্যমে তৈরি হয়, যা পলিকার্বনেটের অন্তর্ভুক্ত। তবে এই প্লাস্টিকে আছে বিষাক্ত bisphenol-A (BPA) রয়েছে। যার কারণে হরমোনের ব্যাধি, বন্ধ্যাত্ব, হাইপার অ্যাক্টিভিটি, প্রজনন সমস্যা এবং স্বাস্থ্যগত অন্যান্য সমস্যা ঘটতে পারে।

বৈদ্যুতিক তার, সিডি ও ডিভিডি, সানগ্লাস, আইপড কেস, কম্পিউটারের ক্ষেত্রে নাইলন, এবং বুলেটপ্রুফ সামগ্রীতে ব্যবহার হয় এই প্লাস্টিক। এই নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকের জিনিস একাধিকবার ব্যবহার করা গেলেও এমন প্লাস্টিক এড়িয়ে চলা উচিত।

কোন নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক ব্যবহার নিরাপদ?

সবধরনের প্লাস্টিকই এড়িয়ে চলা উচিত। তবে প্লাস্টিক যেহেতু সম্পূর্ণ এড়িয়ে চলা আমাদের পক্ষে সম্ভব না, তাই বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দেন, ২, ৪ এবং ৫ নম্বরযুক্ত প্লাস্টিক ব্যবহার করার জন্য। এই প্লাস্টিকগুলিই সবচেয়ে নিরাপদ হিসাবে বিবেচিত হয়। তারা আরো বলেন আমাদের ৩, ৬ এবং ৭ নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকগুলো এড়িয়ে চলা উচিৎ। আর ১ নম্বরযুক্ত প্লাস্টিকের ব্যবহার নিরাপদ হিসাবে বিবেচিত হলেও, এই প্লাস্টিকটিকে এড়িয়ে চলা ভাল।

সোর্স: Resin identification code

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 Shares
Share via
Copy link