টপ ৫: আমেরিকার সবচেয়ে দর্শনীয় ও আকর্ষণীয় স্থান

আমেরিকা বিশ্বের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় দেশগুলির মধ্যে একটি। প্রতিবছর দেশটিতে বিপুল পরিমান পর্যটক আসে দেশটির বিভিন্ন দর্শনীও ও আকর্ষণীয় স্থানগুলো ভ্রমন করতে। নিউইয়র্ক ও শিকাগোর স্কাইস্ক্রাপার বা সুউচ্চ অট্টালিকা থেকে শুরু করে আলাস্কার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ইয়োলোস্টোন কিংবা ক্যালিফোর্নিয়ার, ফ্লোরিডা এবং হাওয়াইের সুদৃশ্য সৈকত – সবই আমেরিকান এবং আমেরিকায় আগত টুরিস্টদের কাছে খুবই আকর্ষণীয়। আর আমেরিকার এতো এতো আকর্ষণীয় স্থান থেকে বাছাই করে সবচেয়ে সেরা ৫ টি আকর্ষণীয় স্থান নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন। তো চলুন দেখে নেই আমেরিকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় ৫ টি স্থান সম্পর্কে:

আমেরিকার সবচেয়ে দর্শনীয় ও আকর্ষণীয় স্থান

(Top Tourist Attractions in United States of America – USA)

লাস ভেগাস স্ট্রিপ (Las Vegas Strip)

লাস ভেগাস স্ট্রিপ (Las Vegas Strip)

৫. লাস ভেগাস স্ট্রিপ: লিস্টের ৫ম স্থানে রয়েছে লাস ভেগাস স্ট্রিপ (Las Vegas Strip)। বিশ্বের গ্যাম্বলিং রাজধানী হিসেবে খ্যাত, লাস ভেগাস আমেরিকার দক্ষিণ নেভাদা মরুভূমিতে অবস্থিত। লাস ভেগাস শহরের যে সমস্ত রাস্তা জুড়ে বড় বড় হোটেল, জুয়া খেলার আখড়া বা ক্যাসিনো গুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে সে জায়গাটুকুকে বলা হয়  লাস ভেগাস স্ট্রিপ। লাস ভেগাসের ৫ তারকা বা ৭ তারকা হোটেলগুলো নির্মিত হয়েছে বিভিন্ন থিমকে ঘিরে। যেমন – কোনটা প্যারিস,  কোনটা আলাদীন,  কোনটা ট্রেজার আইল্যান্ড,  কোনটা সিজার সম্রাট, গ্রীস, আফ্রিকা, মিশরের ফারাও রাজাদের কেন্দ্র করে নির্মিত। তবে, শুধু হোটেল বা ক্যাসিনো নয়, এই শহরের এয়ারপোর্ট থেকে শুরু করে  সুপার মার্কেট, গ্যাস স্টেশন, সুপার মার্কেট, রেস্তোরাঁ ইত্যাদি সব জায়গাতেই সাজানো থাকে জুয়া খেলার স্লট মেশিন।

নায়াগ্রা জলপ্রপাত (Niagara Falls)

নায়াগ্রা জলপ্রপাত (Niagara Falls)

৪. নায়াগ্রা জলপ্রপাত: আমেরিকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থানের ৪র্থ স্থানে রয়েছে প্রকৃতির অপার বিস্ময় –  নায়াগ্রা জলপ্রপাত (Niagara Falls)। বিশ্বের সর্ববৃহৎ জলপ্রপাত এটি।১৬৭ ফুট উঁচু এই জলপ্রপাত থেকে প্রতি সেকেন্ডে ৬৪ হাজার ৭৫০ ঘনফুট পানি নদীতে আছড়ে পড়ে। জলপ্রপাতটি আমেরিকার নিউইয়র্ক এবং কানাডার ওন্টারিও প্রদেশের মধ্যবর্তী আন্তর্জাতিক সীমানার ওপর অবস্থিত। ভ্রমণ পিপাসু সকল প্রকৃতিপ্রেমী পর্যটকদের কাছে নায়াগ্রা জলপ্রপাতটি একটি রোমাঞ্চকর স্থান। তবে আমেরিকাতে জলপ্রপাতটি পিছন থেকে দেখতে হলেও কানাডাতে সরাসরি সামনে থেকেই দেখা যায় ফলে সম্পূর্ণ জলপ্রপাত ভালোমত দেখা যায়। এখানে মুগ্ধ পর্যটকদের খুব কাছেই জলপ্রপাতের জলরাশিতেই রংধনু এসে ধরা দেয়। আমেরিকাতে প্রতি বছরে ১৪ মিলিয়নেরও বেশি পর্যটক আসে প্রকৃতির অপার বিস্ময় এই নায়াগ্রা জলপ্রপাত দেখতে।

ম্যানহাটন (Manhattan)

ম্যানহাটন (Manhattan)

৩. ম্যানহাটন: আমেরিকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থানের লিস্টের পরবর্তী স্থানে রয়েছে ম্যানহাটন (Manhattan)। ম্যানহাটন আমেরিকার বৃহত্তম শহর নিউইয়র্ক সিটির ৫ টি বরো বা কাউন্টির মধ্যে ক্ষুদ্রতম। ম্যানহাটনই মূলত নিউইয়র্ক শহরের প্রাণ। নিউইয়র্ক সিটির কথা চিন্তা করলেই আমাদের মনের মধ্যে ভেসে উঠে ম্যানহাটনের গগনচুম্বী সব দালান বা  স্কাইস্ক্রাপারের চিত্র। আকাশ ছোয়া এসব দালানের চিত্র আমরা হাজার বার এরও বেশি দেখেছি টিভির পর্দায়। এখানের গগনচুম্বী দালানগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো এম্পায়ার স্টেট, ক্রিস্‌লার এবং সিটিকর্প সেন্টার। আর ১০১ তলা ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার যুগলের অবস্থানও ছিল এই ম্যানহাটন দ্বীপেই।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ ৫টি সমুদ্র সৈকত
ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক (Yellowstone National Park)

ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক (Yellowstone National Park)

২.  ইয়েলোস্টোন জাতীয় উদ্যান: আমেরিকার দর্শনীয় স্থান গুলোর মধ্যে অন্যতম হল ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক (Yellowstone National Park)। এটি বিশ্বের বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন ন্যাশনাল পার্ক। পার্কের ভিতরে রয়েছে পর্বতমালা, সক্রিয় আগ্নেয়গিরি, উপ আ্যলপাইন অরণ্য, গিরিখাত, নদী ও হ্রদ। এটি ১৮৭২ সালের ১লা মার্চ রাষ্ট্রপতি ইউলিসিস এস. গ্র্যান্টের সাক্ষরানুক্রমে মার্কিন কংগ্রেস একটি আইন পাস করে স্থাপিত হয়েছিলো। পার্কটি মূলত ওয়াইওমিং রাজ্যে অবস্থিত হলেও মন্টানা ও আইডাহো রাজ্যেও এর কিছু অংশ রয়েছে৷ জীববৈচিত্র্য ও জিওথার্মাল বৈশিষ্ট্যের জন্য পার্কটি খুবই বিখ্যাত। পার্কটিতে বিভিন্ন বৈচিত্র্যময় বন্যপ্রাণীরও দেখা মিলে; যার মধ্যে রয়েছে ইয়েলোস্টোন পার্ক বাইসন, কালো ভাল্লুক, নেকড়ে, প্রোঙ্গহর্ন অ্যান্টিলোপ (এক ধরণের হরিণ), বড় শিংওয়ালা ভেড়া, মেঠো কাঠবিড়ালি, পালকহীন ঈগল, লাল শিয়াল, ছাই বর্ণের ঘুঘু ইত্যাদি।

গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন (Grand Canyon)

গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন (Grand Canyon)

১. গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন: আমেরিকান টুরিস্টদের কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থান হল গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন (Grand Canyon)। আমেরিকার অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যেের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে অবস্থিত এই গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন যেন পৃথিবীর ২০০ কোটি বছরের এক নীরব সাক্ষী। এর অধিকাংশ এলাকা গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন ন্যাশনাল পার্কের মধ্যেই অবস্থিত। এই গিরিখাতটি দৈর্ঘ্যে ২৭৭ মাইল এবং প্রস্থে সর্বোচ্চ ১৮ মাইল এবং গভীরতায় প্রায় ১৮০০ মিটার। অসামান্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্য গ্র্যান্ড ক্যানিয়নকে এনে দিয়েছে আমেরিকায় আগত পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণের খ্যাতি। প্রতি বছর পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিপুল সংখ্যক দর্শনার্থী ছুটে আসেন গ্র্যান্ড ক্যানিয়নের বাহারি রংয়ের সৌন্দর্য উপভোগ করতে। তবে গ্র্যান্ড ক্যানিয়নে ঘুরতে আসা পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণ হলো সূর্যোদয় দেখা।

আমেরিকার আরো কিছু দর্শনীয় স্থান হলো – গোল্ডেন গেট ব্রিজ, হোয়াইট হাউস, ওয়াল্ট ডিজনী ওয়ার্ল্ড, টাইমস স্কয়ার, স্ট্যাচু অফ লিবার্টি ইত্যাদি।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

2 Responses

  1. md arif khan says:

    I want to see all the sights of the USA, how it is possible

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *