মারিনা বে: সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থান

মারিনা বে’র বাইরের আবরণটা খুঁচিয়ে তুলে ফেলো। পেয়ে যাবে চীনা, মালয়, ভারতীয় আর পাশ্চাত্য রীতিনীতির এক অদ্ভুত মিশেল। আর যা-ই হোক, একেঘেয়ে বলা যাবে না তাকে। লোনলিপ্ল্যানেট ডটকমে ‘শহুরে’ দেশ সিঙ্গাপুর সম্পর্কে লেখা আছে তা-ই।

সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থান মারিনা বে

সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থান মারিনা বে
সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থান মারিনা বে

সিঙ্গাপুর দেশটা বড্ড যান্ত্রিক। সবকিছু ঝকঝকে তকতকে, সারাক্ষণ সব মানুষও ছুটছে শুধু। বলা হয়ে থাকে ব্যতিক্রমী স্থাপনা তৈরির ক্ষেত্রে সিঙ্গাপুর শহর অবশ্যই অগ্রদূত। আর সেদিক থেকে বিবেচনা করলে মারিনা বে স্যান্ডস অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। এ শহরটি অভিজাত খাবার এবং স্থাপত্যশৈলীর কারণে সুপরিচিত। এতে অবাক হওয়ার কিছুই নেই যে, এ সময়ে বিশ্বের সবচেয়ে দামি স্থাপনা সিঙ্গাপুরে অবস্থিত। দ্য মারিনা বে স্যান্ডসের ৫৭ তালায় অবস্থিত বন্দরমুখী পর্যবেক্ষণ ডেক হোটেলের মেহমানদের জন্য খুবই আকর্ষণীয় একটি স্থান। ভূমি থেকে ২০০ মিটার উপরের এ তলায় রয়েছে একটি ইনফিনিটি পুল। দুটি সুবিশাল হোটেল টাওয়ারের মোট খরচ ৬ বিলিয়ন ডলার।

মারিনা বে যেন স্বয়ংসম্পূর্ণ আরেকটি শহর। এর প্রাণকেন্দ্র হলো মারিনা বে হোটেল। এটি সিঙ্গাপুরের একটি অত্যাধুনিক রিসোর্ট কমপ্লেক্স। ২০১০ সালে নির্মিত এই মারিনা বে স্যান্ডস বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিল্ডিংগুলোর মধ্যে একটি। এটি একটি ৬ বিলিয়ন ডলারের সম্পত্তি, যার উচ্চতা ১৯৪ মিটার এবং এটি একটি ৫৭ তলা ভবন। এখানে আছে একটি হোটেল, বিভিন্ন দামি ব্র্যান্ড এর শোরুম, আর্টসায়েন্স মিউজিয়াম (ArtScience Museum), রেস্টুরেন্ট, কনভেনশন সেন্টার, থিয়েটার, একটি শপিংমল – যার মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে একটি খাল, এবং মারিনা বে স্যান্ডস স্কাইপার্ক (Marina Bay Sands Skypark) – একটি উঁচু স্থান যেখান থেকে সমগ্র সিঙ্গাপুর দেখা যায়।

মারিনা বে স্যান্ডসের ৩টি স্কাইস্ক্র্যাপার এর উপর অবস্থিত জাহাজ
মারিনা বে স্যান্ডসের ৩টি স্কাইস্ক্র্যাপার এর উপর অবস্থিত জাহাজ

সমগ্র সিঙ্গাপুর দেখার এই ডেক এবং ইনফিনিটি পুল অবস্থিত একটি জাহাজের মধ্যে (হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছেন। মেরিনা বে স্যান্ডস স্কাইপার্কের উপরে অবস্থিত এই জাহাজ)। আর জাহাজ? সে তো একসাতে মারিনা বে স্যান্ডসের তিনটি স্কাইস্ক্র্যাপার এর উপর অবস্থিত! কেবল হোটেল গেস্টরা এই ইনফিনিটি পুল ব্যবহার করতে পারলেও যে কেউই পর্যবেক্ষণের ডেক দেখতে পারবেন। তো? আর কি লাগে? উপরে উঠে সেলফি তো তুলতেই হয়, নাকি?  এখানে আরো আছে অলিন্দে ক্যাসিনো যা বিশ্বের বৃহত্তম ক্যাসিনো। আসলে, এখানে আপনার কল্পনার চেয়ে অনেক বেশি কিছু রয়েছে। ওহ! বলতে ভুলেই গেছি এখানে কৃত্রিম বরফের তৈরি একটি স্কেটিং কোর্টও আছে।

সিঙ্গাপুরের রাতের দৃশ্য দারুনভাবে উপভোগ করা যায়। এখানে আছে সুদৃশ্য বাগান –গার্ডেন্স বাই দ্য বে– যেখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের ফুল আর অর্কিড দেখতে পাবেন। আরও দেখতে পাবেন সিঙ্গাপুর ফ্লাইয়ার এর অপরূপ দৃশ্য আর আলোকোজ্জ্বল বিশাল বিশাল ইমারত।

মারিনা বে কেনাকাটার জন্য স্বর্গই বলা যায়। তবে পকেটে টাকা নিয়ে কুলোবে না। কয়েক রকম কার্ড সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে। ফেনডি, বুলগ্যারি, রালফ লরেন, ডিওর—বিশ্বখ্যাত কোন ব্র্যান্ডটা নেই! তাই সিঙ্গাপুরের বিখ্যাত এই মারিনা বে তে শপিং করতে যাওয়ার আগে ক্রেডিট কার্ড নিতে ভুলবেন না যেন।

লেখক: Imran Hossain Emu

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 Shares
Share via
Copy link