টপ ৫: তসলিমা নাসরিনের সেরা ৫ টি বই

তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশে জন্মগ্রহন করা একজন নির্বাসিত, বিতর্কিত ও সমালোচিত লেখিকা। নারীবাদী এই লেখিকার লেখায় উঠে এসেছে ধর্ম-সমাজ-পুরুষতান্ত্রিক ব্যবস্থার বিরুদ্ধে নিজস্ব ক্ষোভ। যার ফলে তিনি বিভিন্ন সময় সমালোচিত হয়েছেন, হয়েছেন নিন্দিত। লেখার কারণে হারাতে হয়েছে স্বদেশের ঠাঁই, হয়েছেন নির্বাসিত! তারপরও তার মত প্রকাশে বার বার এসেছে বাধা, বেঁধে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে তার মুখ, নিষিদ্ধ করা হয়েছে তার বই। তবুও তার কলম থেমে থাকে নি। তিনি লিখে চলেছেন তার যত কথা। আজকের এই পর্বে নারীবাদি লেখিকা তসলিমা নাসরিনের সেরা ৫ টি বই নিয়ে আলোচনা করব।

তসলিমা নাসরিনের সেরা ৫ টি বই

শ্রেষ্ঠ কবিতা

শ্রেষ্ঠ কবিতা প্রচ্ছদ

‘শ্রেষ্ঠ কবিতা’ প্রচ্ছদ

তসলিমা নাসরিনের কাব্য সংকলন হচ্ছে শ্রেষ্ঠ কবিতা। লেখিকা কলাম, গল্প, উপন্যাস ও আত্মজীবনির পাশাপাশি অনেক কবিতা রচনা করেছে। ষাটের দশক থেকে শুরু করে বর্তমান সময় পর্যন্ত লেখা বিভিন্ন কবিতা নিয়ে বইটি সাজানো হয়েছে। এই গ্রন্থের উল্লেখ্যযোগ্য কিছু কবিতা হলো: পরিচয়, ডাক দিয়ো, গোল্লাছুট, দুধরাজ ইত্যাদি।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সেরা ৫ বই

নষ্ট মেয়ের নষ্ট গদ্য

নষ্ট মেয়ের নষ্ট গদ্য প্রচ্ছদ

‘নষ্ট মেয়ের নষ্ট গদ্য’ প্রচ্ছদ

নষ্ট মেয়ের নষ্ট গদ্য তসলিমা নাসরিনের আরেকটি বিখ্যাত ও বিতর্কিত মূলক গ্রন্থ। তার এই আত্মজীবনি তে তিনি বলেন, এই নষ্ট সমাজ ওত পেতে আছে, ফাঁক পেলেই মেয়েদের ‘নষ্ট’ উপাধি দেবে। তার মতে সমাজের নষ্টামি এতদূর বিস্তৃত যে, ইচ্ছে করলেই মেয়েরা তার থাবা থেকে গা বাঁচাতে পারে না। এই বইটিতে নিজের জীবনের শত শত ঘটনা বা দুর্ঘটনায়, এই সমাজের সম্পর্কে এইরূপ আরো অনেক সত্য মন্তব্য করেছেন লেখিকা।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: মুহম্মদ জাফর ইকবালের লেখা সেরা ৫ টি বই

তসলিমা নাসরিনের 'ক'

তসলিমা নাসরিনের ‘ক’

ময়মনসিংহের আঞ্চলিক ভাষায় ‘বলা’ কে বলে ‘’। অর্থাৎ ‘কথাটি বল্’ কে স্থানীয় ভাষায় বলা হয় ‘কথাটা ক’। সেই ‘বলা’ কথার বই ‘ক’ তসলিমা নাসরিনের একটি বিতর্কিত ও নিষিদ্ধ গ্রন্থ। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় ২০০৩ সালে। এরপর বইটি সাহিত্য ও মিডিয়া অঙ্গনে ব্যাপক বিতর্ক সৃষ্টি করে। কারণ বইটিতে তসলিমা নাসরিন তাঁর ব্যক্তিজীবনের ঘটনাগুলো খুব খোলামেলা ভাবে প্রকাশ করেছেন। বলেছেন যৌনতা ও ধর্ম বিষয়ে নিজের মতামত। ইমদাদুল হক মিলন, সৈয়দ শামসুল হক সহ বিভিন্ন জনকে জড়িয়ে নিজের জীবনের ঘটনা ব্যক্ত করেন। যদিও এর সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। কবি ও ঔপন্যাসিক সৈয়দ শামসুল হক তসলিমার বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানীর মামলা করে দেন। ফলে হাই কোর্ট বইটি নিষিদ্ধ করেন।

আমার মেয়েবেলা

আমার মেয়েবেলা প্রচ্ছদ

আমার মেয়েবেলা প্রচ্ছদ

আমার মেয়েবেলা তসলিমা নাসরিনের আরেকটি নিষিদ্ধ বই। বইটি ১৯৯৯ সালে বাংলাদেশ থেকে নিষিদ্ধ হয়। এটি তসলিমা নাসরিনের আত্মজীবনীমূলক একটি বই। নষ্ট ও গলিত পুরুষতান্ত্রিক ব্যবস্থায় একটা মেয়ে যে প্রতিকূল পরিবেশের ভেতর দিয়ে বেড়ে ওঠে তাই বর্ণনা করেছেন নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে। যৌননিপিড়িত হয়েছেন আত্মীয়-স্বজন কর্তৃক তার বর্ণনাও উঠে এসেছে বইটিতে। বলেছেন তার মেয়েবেলার মনের আকুলিবিকুলিও। অশ্লীলতার অভিযোগে বাংলাদেশ সরকার এই বইটি ব্যন করে দেন।

আরো পড়ুন:  টপ ৫: আহমদ ছফার লেখা সেরা ৫ টি বই

লজ্জা

তসলিমা নাসরিনের লেখা “লজ্জা"

তসলিমা নাসরিনের লেখা “লজ্জা”

তসলিমা নাসরিনের লেখা “লজ্জা” বাংলাদেশের অন্যতম নিষিদ্ধ একটি উপন্যাস। ১৯৯২ সালের ৬ই ডিসেম্বর, ভারতের বাবরি মসজিদ ধ্বংস করার খবরে প্রভাব পড়ে পাশের দেশ বাংলাদেশে। দাঙ্গার প্রভাবে এক হিন্দু পরিবার এলাকাবাসীর ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়। পরিবারটির প্রতিটি সদস্য সেই সময়টুকু নিজের অনুভূতি দিয়ে নিজের মত করে দেখে। উপন্যাসের অন্যতম চরিত্র সুধাময়। যিনি একজন দেশপ্রেমী। দেশকে নিজের মায়ের মত দেখে। তার বিশ্বাস, মায়ের মত করে বাংলাদেশও তাকে রক্ষা করবে। ৫২এর ভাষা সৈনিক ও ৭১এর মুক্তিযুদ্ধা সুধাময় দেশের মাটি আঁকড়ে পড়ে থেকে যাননি পার্শ্ববর্তী দেশে। তারই ফল যেন এখন ভোগ করছে সুধাময়ের পুরো পরিবার। এলাকার ধর্মীয় ধ্বজাধারীরা বাড়ি লুটপাটের সাথে তুলে নিয়ে যায় মায়াকে।এই ক্ষোভ কমাতে সুরঞ্জন রাস্তা থেকে তুলে আনে শামীমা নামের এক দেহপসারিনীকে, যার মাধ্যমে সে তার কামনা চরিতার্থ করে যেমন করে অন্য ধর্মের মানুষেরা তার বোনের উপর ক্ষোভ মিটিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত কি হয় সুরঞ্জনের পরিবারের? তারা কি নিজের মাতৃভূমি ছেড়ে পাশের দেশে চলে যাবে? সুধাময় কি সর্বহারা হয়েও তার জেদ ধরে রাখবে?এই ব্যাপারগুলো দিয়েই শেষ হয় উপন্যাসটি। উপন্যাসের মূল প্রশ্ন হচ্ছে,মায়া যে তার সম্ভ্রম হারিয়েছে, এই লজ্জা আসলে কার? মায়ার? মায়ার পরিবারের? না বাংলাদেশের?

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *