টপ ৫: যেসব দেশে ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি

ক্যান্সার হল অনিয়ন্ত্রিত কোষ বিভাজন সংক্রান্ত রোগসমূহের সমষ্টি। আর সাধারনভাবে বলতে গেলে যখন কোষগুলো কোনও কারণে অনিয়ন্ত্রিতভাবে বাড়তে থাকে তখনই ত্বকের নিচে মাংসের দলা অথবা চাকা দেখা যায়। একেই টিউমার বলে। এই টিউমার বিনাইন বা ম্যালিগন্যান্ট হতে পারে। তবে ম্যালিগন্যান্ট টিউমারকেই ক্যান্সার বলা হয়। এখনও পর্যন্ত এই রোগে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। প্রতি বছর ১৫ মিলিয়নের বেশি লোক এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। তো চলুন দেখে নেই কোন কোন দেশগুলোতে ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি।

যেসব দেশে ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি

(Countries With the Highest Rates of Cancer)

আমেরিকা: সবচেয়ে বেশি ক্যান্সারের হারের লিস্টে ৫ম স্থানে রয়েছে আমেরিকা। আমেরিকায় প্রতি বছর প্রতি ১০০,০০০ লোকের মধ্যে ৩৫২.১ জনেরই ক্যান্সার হয়। ক্যান্সারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় ফুস্ফুস ক্যান্সার। এছাড়া প্রোস্টেট ক্যান্সার (মূত্রথলির ক্যান্সার) এবং কলোরেক্টাল ক্যান্সারে (কোলন ক্যান্সার) আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও বেশি।

হাঙ্গেরি: লিস্টের ৪র্থ স্থানে আছে হাঙ্গেরি। দেশটিতে প্রতি ১০০,০০০ লোকের মধ্যে ৩৬৮.১ জনেরই ক্যান্সার রয়েছে। ক্যান্সারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় ফুস্ফুস ক্যান্সার

আয়ারল্যান্ড: লিস্টের পরবর্তী স্থানে রয়েছে আয়ারল্যান্ড। ইউরোপের এই দেশটিতে প্রতি ১০০,০০০ লোকের মধ্যে ৩৭৩.১ জনেরই ক্যান্সার রয়েছে। ক্যান্সারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় ফুস্ফুস ক্যান্সার এবং কলোরেক্টাল ক্যান্সার (কোলন ক্যান্সার)

নিউজিল্যান্ড: সবচেয়ে বেশি ক্যান্সারের হারের লিস্টে ২য় স্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ড। এখানে প্রতি ১০০,০০০ লোকের মধ্যে ৪৩৮.১ জনেরই ক্যান্সার রয়েছে। দেশটিতে ক্যান্সারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় মেলানোমা ক্যান্সার (এক ধরনের স্কিন ক্যান্সার)। আর প্রতি বছর এই ক্যান্সারের কারনেই দেশটিতে সর্বাধিক মানুষ মারা যায়।

অস্ট্রেলিয়া: বিশ্বে ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি অস্ট্রেলিয়াতে। এখানে প্রতি ১০০,০০০ লোকের মধ্যে ৪৬৮ জনেরই ক্যান্সার রয়েছে। আর ক্যান্সারের মধ্যে প্রোস্টেট ক্যান্সার (মূত্রথলির ক্যান্সার), মেলানোমা ক্যান্সার (এক ধরনের স্কিন ক্যান্সার) এবং স্তন ক্যান্সারের হার সবচেয়ে বেশি। অস্ট্রেলিয়াতে ছেলেদের মধ্যে প্রতি ২ জনে ১ জন এবং মেয়েদের মধ্যে প্রতি ৩ জনে ১ জন ৮৫ বছর হওয়ার আগেই ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনায় আছে।

বাংলাদেশে ক্যান্সার পরিস্থিতি

সব ধরনের ক্যান্সারে বাংলাদেশে ২০১৬ সালে মোট ৮৯ হাজার ১০ জনের মৃত্যু হয়েছিল। তবে ২০৪০ সালে ক্যান্সারে মৃত্যু বেড়ে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৮৪০ হবে। অর্থাৎ ক্যান্সারে মৃত্যু বাড়বে ৯০ শতাংশ। বর্তমানে দেশে সবচেয়ে বেশি মানুষ হৃদ্‌রোগে মারা গেলেও ২০৪০ সালে থেকে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হবে ক্যান্সারে (প্রথম আলো)।

ক্যান্সারের চিকিৎসা খুবই ব্যয়বহুল। আর কার্যকর কোন চিকিৎসা পদ্ধতি বা ওষুধও এখনো আবিস্কার হয়নি। তাই প্রতিবছরই বিশ্বজুড়ে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এবং মৃত্যু সংখ্যা দুটোই বাড়ছে। তবে ক্যান্সারের চিকিৎসায় পুরোপুরি কার্যকর কোনও ওষুধও আবিষ্কৃত না হলেও প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পরলে এই রোগ সারানোর সম্ভাবনা অনেকাংশ বেড়ে যায়।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *