টপ ৫: বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর হিন্দু মন্দির

পৃথিবীর অন্যতম পুরাতন ধর্ম সনাতন। হিন্দুদের কাছে মন্দির আরাধনার স্থান। হিন্দুরা সৃষ্টিকর্তার আরাধনার জন্য মন্দিরে যায়। মন্দিরে ভগবানের সাকার রূপকে পূজা-অর্চনা করা হয়। তাই হিন্দুদের কাছে মন্দির পবিত্র। ভারতবর্ষে হিন্দু ধর্মের উত্থান হলেও ধর্ম ছড়িয়ে ছিটিয়ে গেছে ইউরোপ আমেরিকাতেও। আর আজকে আমরা জানব বিশ্বের নান্দনিক ৫ টি মন্দির সম্পর্কে:

বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর ৫টি মন্দির

মীনাক্ষী মন্দির

দৃষ্টিনন্দন মীনাক্ষী মন্দির

দৃষ্টিনন্দন মীনাক্ষী মন্দির

ভারতের রাজবংশীয় শাসনকালের ইতিহাসের মধ্যে তামিলনাডুর মাদুরাই নগর সম্পর্কে জানতে গেলে মীনাক্ষী মন্দিরটি চলে আসবে সবার আগে। এই মন্দির ভারতের স্থাপত্যকলা নিদর্শনের ইতিহাসে এক মাইলফলক। সাড়ে চার হাজার পিলার এবং ১২টি টাওয়ার মিলিয়ে পুরো মন্দিরটি মোট ১৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত। টাওয়ারগুলোর মধ্যে সবচেয়ে উঁচু টাওয়ারের উচ্চতা ১৭০ ফুট এবং প্রাক্তন মাদুরাই শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই মন্দিরের চূড়া দেখা যেত। মন্দির কর্তৃপক্ষের এক হিসাব অনুযায়ী, মন্দিরটির বার্ষিক আয় ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রতিদিন প্রায় বিশ হাজার পর্যটক ও পুণ্যার্থী আসে এই মন্দিরে। মন্দিরটির শরীরে যে চিত্রাকর্ষক কলাশিল্প দেখা যায় তাতে ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রান্তের ঐতিহাসিক ঘটনাবলির সূত্রপাত লক্ষ্যনীয়। হিন্দু ধর্মানুসারীদের প্রাচীন দেবী জাঙ্গুলির মূর্তিও এই মন্দিরের শরীরে বসানো আছে, যা গোটা ভারতে খুবই কম দেখা যায়। ভাস্কর্যগুলোর সবই প্রায় এনামেল রঙ দ্বারা আবৃত। এ ছাড়াও মন্দিরের সামনের অংশটির মেঝে পুরো মারবেল পাথর দিয়ে তৈরি। নায়াকদের আমলে মন্দির প্রাঙ্গণে বিশাল সব ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদযাপিত হতো এবং এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে সাধু-সন্তের পাশাপাশি অনেক রাজন্যবর্গও আসতেন।

প্রাম্বানান মন্দির

প্রাম্বানান মন্দির

প্রাম্বানান মন্দির

এটি ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপে অবস্থিত দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার বড় মন্দির গুলোর একটি ও ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে বড় হিন্দু  মন্দির। এই প্রাম্বানান মন্দিরে একসাথে ২৪০ টি মন্দির আছে যা সনাতন ধর্মের ঐতিহ্য বহন করছে। প্রাচীন এই মন্দিরটির নির্মাণ সাল আনুমানিক ৮৫০ CE. ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ স্বীকৃত এই মন্দিরটি সারা বিশ্বে অনেক দর্শনার্থী আকর্ষণ করে। মন্দিরটি তার দৈর্ঘ্য ও নিদিষ্ট স্থাপত্য দ্বারা বিশেষভাবে চিহ্নিত করা হয়। একাধিক মন্দির নিয়ে গঠিত বৃহত্তম এই মন্দিরটির ভিতরে ৪৭ মিটার উচু কেন্দ্রীয় ভবন অবস্হিত। এবং এখানে ভগবান শিবের পূজা করা হয়। প্রাম্বানান প্রধান তিনটি মন্দির শিব, বিষ্ণু ও ব্রহ্মকে উৎসর্গীকৃত ও প্রধান মন্দির বরাবর পিছনের তিনটি মন্দির যথাক্রমে এই ত্রি দেবতার বাহন নন্দী, গরুড় ও রাজহংসকে উৎসর্গ করা। দেবতা-বাহনের মন্দিরের মাঝ বরাবর উওর ও দক্ষিণ দিকে দুটি পাশ্বদেশীয় মন্দির রয়েছে। এছাড়াও ভিতর ও বাহিরের জোনে ৪ টি করে মোট ৮ টি মধ্য বরাবর প্রধান দিক নির্দেশনাকারী মন্দির রয়েছে। বাকি ২২৪ টি  মন্দির ভিতরের জোন ও বাইরের জোনের মাঝ বরাবর চার দিকে সমকেন্দ্রীক বর্গাকারে সারি করে সাজানো। বাইরের সারি থেকে ভিতরের সারির মন্দির সংখ্যা যথাক্রমে: ৪৪, ৫২, ৬০ ও ৬৮। জাভা দ্বীপে ভ্রমনরত হিন্দু দর্শনার্থীদের প্রধান লক্ষ্য থাকে এই ঐতিহাসিক দৃষ্টিনন্দিত প্রাম্বানান মন্দির।

গঙ্গা তালাও মন্দির

গঙ্গা তালাও মন্দিরের দূর্গা মূতি

গঙ্গা তালাও মন্দিরের দূর্গা মূতি

গঙ্গা তালাও সাধারণত গ্র্যান্ড ব্যাসিন নামেও পরিচিত। মরিশাস দ্বীপে অবস্থিত সাভানে জেলার একটি নির্জন পাহাড়ী এলাকায় অবস্থিত একটি হ্রদ। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৮০০ ফুট উপরে। এটি মরিশাসের সবচেয়ে পবিত্র হিন্দু স্থান বলে মনে করা হয়। “সাগর শিব মন্দির” হ্রদটির তীরে অবস্থিত এবং এটি ভগবান শিবের কাছে নিবেদিত। ভগবান হনুমান, দেবী গঙ্গা এবং গ্র্যান্ড ব্যাসিনের সাথে পালনকর্তা গণেশ সহ অন্যান্য দেবদেবীর নিবেদিত মন্দির দেখতে এই হ্রদের কাছে প্রতিবছর আসে দেশি বিদেশি অনেক দর্শনার্থী। শিবরাত্রি সময়, মরিশাসের অনেক তীর্থযাত্রী তাদের বাড়ি থেকে হ্রদে খালি পায়ে হেঁটে এসে  ভগবান শিবের পূজা করে থাকে। এই মন্দিরে অবস্থিত “মঙ্গল মহাদেব” ভগবান শিবের স্ট্যচু যা মারিশাসের সবচেয়ে বড় মূতি। মূতিটির উচ্চতা ৩৩ মিটার। এছাড়াও এখানে অবস্থিত সমান উচ্চতার দূর্গা মূতি রয়েছে যা বিশ্বের সবচেয়ে বড় দূর্গা মূতি

অ্যাংকর ভাট

বিশ্বের বৃহত্তম মন্দির অ্যাংকর ভাট

অ্যাংকর ভাট

কম্বোডিয়ায় অবস্থিত অ্যাংকর ভাট ছিল এক সময় বিশ্বের সবচেয়ে বড় হিন্দু মন্দির। ১২ শতকে তৈরি এই মন্দির ইউনোস্কো স্বীকৃত ওয়াল্ড হেরিটেজ সাইটের অংশ। খেমার সাম্রাজ্যের সংস্কৃতির অংশ হিসেবে তৈরি এই মন্দির এখনো হিন্দু দর্শনার্থীদের কাছে টানে। হিন্দু পুরাণে দেবতাদের মৃন্ময়কে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য এই মন্দিরের ডিজাইন করা হয়েছে। একটি মঠ, ২.২ মাইল দীর্ঘ একটি বাইরের দেয়াল, তিনটি আয়তাকার গ্যলারী ও মন্দিরের কেন্দ্রস্থলে চতুর্ভূজ আকৃতিধারী টাওয়ার রয়েছে। যা এখনো নান্দনিক ভাবে মানুষকে আকৃষ্ট করে। মন্দিরটির স্থাপত্য ও স্থাপত্যের সমৃদ্ধি ও তার বিস্তৃত স্থান এবং তার দেয়ালের অলঙ্কারে দেবতাতের প্রশংসা করা হয়েছে।

স্বামীনারায়ণ মন্দির

স্বামীনারায়ণ মন্দির, লন্ডন

স্বামীনারায়ণ মন্দির, লন্ডন

স্বামীনারায়ণ মন্দির যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থিত অন্যতম বৃহত্তম হিন্দু উপাসনালয়। লন্ডনে ভারতের গুজরাট ও আহমেদাবাদের হিন্দু ধর্মনেতাদের পরিচালনায় মন্দিরটি পরিচালিত হয়ে থাকে। এই মন্দিরটি বিশ্বব্যাপী হিন্দু ধর্ম, সংস্কৃতি ও সামাজিক কল্যাণের এক অনন্য কেন্দ্র হিসেবে কাজ করে আসছে। মন্দিরটি ৫,০০০ টন ইতালিয়ান, ইন্ডিয়ান এবং বুলগেরিয়ান লাইমস্টোন দিয়ে তৈরী। হিন্দুদের দেওয়ালি অনুষ্ঠান এই মন্দিরে অনেক জাকজমক ভাবে পালন করা হয়। লন্ডন ছাড়াও ভারত ও আমেরিকায় আরো দুটো স্বামীনারায়ণ মন্দির আছে। ঐ দুটোও কোনো অংশে কম নান্দনিক নয়। যেকোনো হিন্দু দর্শনার্থীর মন সহজেই কারবে।

data-matched-content-rows-num="2" data-matched-content-columns-num="2"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *